‘৭’ দিনের ব্যবধানে ‘৫’ ম্যাচ আয়োজনের ব্যাখ্যা দিলো বিসিবি

আগামী ৩ আগস্ট থেকে শুরু হবে বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া টি-টোয়েন্টি সিরিজ। সিরিজে পাঁচটি ম্যাচ থাকলেও তা মাঠে গড়াবে মাত্র ৭ দিনের ব্যবধানে। এত কম সময়ে এতগুলো ম্যাচ আয়োজনের নজির কমই আছে, বিশেষ করে প্রতিপক্ষ যখন অস্ট্রেলিয়ার মত বড় দল।

তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) দাবি, অজিদের শর্ত মেনেই কম সময়ের ব্যবধানে পাঁচ ম্যাচ সিরিজের সবগুলো ম্যাচ আয়োজন করা হচ্ছে। এছাড়া আবহাওয়ার কারণে ম্যাচ বাধাগ্রস্ত হওয়ার বিষয়টিও ভাবিয়েছে বিসিবিকে। বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন জানান, ‘আমাদের হাতে আর কোনো সুযোগ ছিল না।

অস্ট্রেলিয়া যত কম সময়ের মধ্যে সম্ভব খেলা শেষ করে যেতে চাচ্ছে। আবহাওয়ার বিষয়টিও বিবেচনায় রাখতে হয়েছে।’ সুজনের দাবি, মিরপুর স্টেডিয়ামের ড্রেনেজ ব্যবস্থার কারণে বৃষ্টিতে ম্যাচ বাধাগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা কম। তিনি বলেন, ‘যেহেতু টি-টোয়েন্টি ম্যাচ আর মাঠের প্রস্তুতি ভালো। মাঠের ড্রেনেজ সিস্টেম সম্পর্কে আপনাদের ধারণা আছে।

আশা করি খেলাগুলো আমাদের মত করে শেষ করতে পারব।’ বিসিবির প্রত্যাশা, জৈব সুরক্ষা বলয়ে ম্যাচ আয়োজনের পুরনো অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে এই সিরিজও সফলভাবে আয়োজন করতে সক্ষম হলে ভবিষ্যতে মহামারীর শঙ্কা ছাপিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আয়োজনের পথ সুগম হবে। প্রধান নির্বাহী বলেন, ‘এটা যদি সবার সহযোগিতায় সফলভাবে করতে পারি সামনের সফরগুলো আয়োজনেও ভূমিকা রাখবে।

আমাদের আত্মবিশ্বাসও অনেক বেড়ে যাবে।’ ‘ইতোমধ্যে দুইটা আন্তর্জাতিক ইভেন্ট ও তিনটি ঘরোয়া টুর্নামেন্ট আয়োজন করে আমরা পরীক্ষিত টিম, আমি মনে করি। সর্বশেষ টুর্নামেন্ট (ডিপিএল) ১২ দলের ছিল। এটাও সফলভাবে সম্পন্ন করেছি। এর পেছনে আমাদের যে অভিজ্ঞ জনবল তৈরি হয়েছে তা কাজে লাগাচ্ছি এবং আমরা আত্মবিশ্বাসী।’ .

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*