১১০ কিমি বেগে ধেয়ে আসা ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ নিয়ে সর্বশেষ তথ্য

তীব্র দাবদাহে পুড়ছে দেশ। গরমে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে জনজীবন। বঙ্গোপ’সাগরে লঘু-চাপের প্রভাবে সপ্তাহজুড়ে নেই বৃষ্টির সুখবরও। বঙ্গোপ-সাগরে ঘূর্ণিঝড়ের যে আশঙ্কা তৈরি হয়েছিল, তা আরও পরিণত হয়েছে।

শনিবারের মধ্যে ব ঙ্গো পসাগরের আন্দামান দ্বীপপুঞ্জের কাছা-কাছি এলাকায় একটি লঘুচাপের সৃষ্টি হতে পারে। ২৫ মে রাত থেকে ২৬ মের মধ্যে উপকূলীয় এলাকায় আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’।

মুজিব-বর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী ১১০টি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র, ৩০ বন্যা আশ্রয়কেন্দ্র, ৩০টি ত্রাণ গুদাম, ৫টি মু জি ব কেল্লাসহ বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করবেন।

আবহাওয়া-বিদ মো. শাহিনুল ইসলাম বলেন, ২২ তারিখের কাছাকাছি সময় এটা সেটা লঘু-চাপ হতে পারে। আর যদি লঘু-চাপ হয়ে সেটা স্টেজ পরিবর্তন করে ঘূর্ণি-ঝড়ে রূপ নেয়, তবে সেটা ইয়াস নাম ধারণ করবে।

বাংলাদেশের খুলনা থেকে ‘চট্টগ্রাম’ উপকূল বিস্তৃত হতে পারে ঘূর্ণিঝড় ‘ই য়া স’। এদিকে এই পরিস্থিতির মধ্যেই দেশে বিভিন্ন অঞ্চলে মৃদু থেকে মাঝারি রকমের তাপ-প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে।

বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর এক সতর্ক-বার্তায় জানিয়েছে, উত্তর আন্দামান সাগর ও তৎসংলগ্ন পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে। এটি ঘূর্ণি’ঝড়ে পরিণত হয়ে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে ২৬-মে নাগাদ “উড়িশা-পশ্চিমবঙ্গ” ও বাংলাদেশের খু ল না উপকূলে পৌঁছাতে পারে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*