‘হ্যাঁ আমরা পেরেছি’- কথা রাখলেন সানজিদা

নেপালের কাঠমান্ডুর দশরথ রঙ্গশালা স্টেডিয়ামে স্বাগতিকদের ৩-১ গোলে উড়িয়ে আজ সোমবার সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতে নিয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। এই ম্যাচের আগে বাংলাদেশ দলের রাইট উইঙ্গার সানজিদা আক্তার।

যেটা দ্রুতগতিতে সোশ্যাল সাইটে ভাইরাল হয়ে যায়। সেই পোস্টটিতে উঠে আসে মেয়ে ফুটবলারদের জীবনযুদ্ধের গল্প।জীবনযুদ্ধে লড়াই করে বিজয়ী সানজিদা আজ ফাইনাল শেষে পরলেন বিজয় মুকুট।

 

নিজের ফেসবুক পোস্টটিতে সানজিদা লিখেছিলেন, ‘ পাহাড়ের কাছাকাছি স্থানে বাড়ি আমার। পাহাড়ি ভাইবোনদের লড়াকু মানসিকতা, গ্রাম বাংলার দরিদ্র ও খেটে খাওয়া মানুষদের হার না মানা জীবনের প্রতি পরত খুব কাছাকাছি থেকে দেখা আমার। ফাইনালে আমরা একজন ফুটবলারের চরিত্রে মাঠে লড়ব এমন নয়, এগারোজনের যোদ্ধাদল মাঠে থাকবে, যে দলের অনেকে এই পর্যন্ত এসেছে বাবাকে হারিয়ে, মায়ের শেষ সম্বল নিয়ে, বোনের অলংকার বিক্রি করে, অনেকে পরিবারের একমাত্র আয়ের অবলম্বন হয়ে। আমরা জীবনযুদ্ধেই লড়ে অভ্যস্ত। দক্ষিণ এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের জন্য শেষ মিনিট পর্যন্ত লড়ে যাব। জয় – পরাজয় আল্লাহর হাতে। তবে বিশ্বাস রাখুন, আমরা আমাদের চেষ্ঠায় কোনো ত্রুটি রাখবো না ইনশাআল্লাহ। দোয়া করবেন আমাদের জন্য। ‘

কথা রাখলেন সানজিদা। নেপালের বিপক্ষে ফাইনালে দুর্দান্ত ফুটবল উপহার দিল বাংলাদেশ। জয়ের নেশায় অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠা বাংলাদেশের সামনে হার মানতে বাধ্য হলো হিমালয় কন্যারা। ম্যাচ শেষে তাই সোশ্যাল সাইটে উচ্ছসিত সানজিদা লিখলেন, ‘হ্যাঁ!

আমরা পেরেছি ইতিহাস গড়তে এবং প্রথম সাফ শিরোপা জয় করতে। আমরা এখন দক্ষিণ এশিয়ার চ্যাম্পিয়ন। সমর্থনের জন্য ধন্যবাদ। ‘ সানজিদারা সমর্থন তো পেয়েইছেন। এই ফাইনাল নিয়ে আজ গোটা বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়েছিল ফুটবল উন্মাদনা। অনেক সমস্যায় জর্জরিত দেশবাসীকে আনন্দের উপলক্ষ এনে দিলেন সানজিদা-কৃষ্ণা-শামসুন্নাহাররা।

Sharing is caring!