হিজাবের অনুমতি না দেয়ায় ২৩১ শিক্ষার্থীর পরীক্ষা বর্জন

ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য কর্ণাটকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মুসলিম শিক্ষার্থীদের হিজাব পরা নিয়ে গত কয়েকমাস ধরেই উত্তেজনা বিরাজ করছে। যা কিনা পুরো ভারতে ছড়িয়ে পড়ে। এবার হিজাব পরে পরীক্ষা দেয়ার অনুমতি না মেলায় পরীক্ষা বর্জন করেছেন ২৩১ শিক্ষার্থী।

শুক্রবার (১৮ মার্চ) কর্ণাটক রাজ্যের এক কলেজে এ ঘটনা ঘটে। হিজাব পরে পরীক্ষায় অংশ নিতে যায় মুসলিম নারী শিক্ষার্থীরা। কিন্তু কলেজ কর্তৃপক্ষ তাদের হিজাব পরে পরীক্ষা দেয়ার অনুমতি দেয়নি। আদালতের আদেশ অমান্য করে হিজাব পরে পরীক্ষায় অংশ নেওয়া যাবে না বলে জানিয়ে দেন তারা।

কলেজ কর্তৃপক্ষের এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেন মুসলিম শিক্ষার্থীরা। এক পর্যায়ে তারা পরীক্ষা বর্জনের সিদ্ধান্ত নেন। হিজাব পরে পরীক্ষায় অংশ দিতে না দেয়ায় পরীক্ষা বর্জন করেন ২৩১ জন শিক্ষার্থী। এদের মধ্যে কিছু ছাত্রও রয়েছেন।

সম্প্রতি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব পরার ওপর নিষেধাজ্ঞা নিয়ে তোলপাড় শুরু হয় কর্ণাটকে। যা কিনা আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে। এদিকে ধর্ম পালনের জন্য হিজাব পরিধান বাধ্যতামূলক নয় বলে জানিয়েছে আদালত। আদালতের এই নির্দেশে হিজাব নিষিদ্ধ করার প্রতিবাদে উচ্চ আদালতে দায়ের হওয়া সব পিটিশন খারিজ হয়ে যায়।

গত মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) কর্ণাটকের হাইকোর্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে হিজাব পরার ওপর নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখার ঘোষণা দেন। কর্নাটক হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি রীতুরাজ অবস্থি, বিচারপতি কৃষ্ণ এস দীক্ষিত এবং বিচারপতি জেএম খাজির একটি পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ হিজাব মামলা নিয়ে এই রায় ঘোষণা করেন।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*