সাকিব যেন এক নিঃসঙ্গ শেরপা!

কিব আল হাসান সবসময় বলে এসেছেন বোলিংটা তাঁর সহজাত। এর প্রমাণ তিনি প্রতিনিয়তই দেন। ব্যাটিংয়ে যথেষ্ট ঘাটতি আছে। অনেক দিন ব্যাটে রান নেই সাকিবের। নিজেও বুঝতে পারেন সেটি। কাজ করে যাচ্ছেন ব্যাটিং নিয়ে।

গত ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হারের পর বলেছিলেন, দলের বোলিং-ফিল্ডিং নিয়ে সন্তুষ্ট তিনি। চিন্তার জায়গা ব্যাটিং। পরের দুই ম্যাচে ভালো করে বিশ্বকাপে নামব আমরা। সাকিব কথা রাখলেন, ভালো করলেন। কিন্তু অন্যরা পারলেন না।

বাংলাদেশের বোলিং নিয়ে আজ বুধবার রীতিমতো ছেলেখেলা করল নিউজিল্যান্ড। ক্রাইস্টচার্চে তাণ্ডব চালিয়ে ২০৮ রান করে নিউজিল্যান্ড।এই কঠিন লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে এক সাকিব ছাড়া কারও মধ্যে চেষ্টার দেখা মেলেনি।

৮ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ৪৪ বলে ৭০ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। তাঁর লড়াকু মানসিকতার ফলে বাংলাদেশ ১৬০ পর্যন্ত যেতে পেরেছে। নয়তো থামতো আরও আগে। সাকিব ছন্দে ফিরলে আত্মবিশ্বাস পায় গোটা দেশ। কিন্তু সতীর্থরা কী পান না সেই আত্মবিশ্বাস?

আগের দিন বাংলাদেশ দলের টেকনিক্যাল কনসালটেন্ট শ্রীধরণ শ্রীরাম জানান, সাকিবের ওপর আস্থার কথা। বলেছিলেন, ‘দল নিয়ে তাঁর পরিকল্পনা আছে। আমরা পূর্ণ আস্থা রাখছি সাকিবের উপর। দলের সবাইকে উদ্বুদ্ধ করছে সে। ঘুরতে নিয়ে যাচ্ছে, কথা বলছে।’

নিজের প্রতি আস্থার প্রতিদান সাকিব বারবার দেন। কিন্তু, ক্রিকেট একজনের খেলা নয়। দলগত খেলা। বাকি দশজন এগিয়ে না এলে নিঃসঙ্গ শেরপা হয়ে কতদূর টানতে পারবেন সাকিব! কতদূরই বা টানা যায় একা একা!

Sharing is caring!