সাকিব-মুস্তাফিজকে বিশাল বড় দু:সংবাদ দিলো বিসিসিআই

হঠাৎ আইপিএল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় খেলোয়াড়রা ভারত ছেড়েছেন। অনেক ঝক্কি-ঝামেলা শেষে নিজ নিজ দেশে, নিজ নিজ জাতীয় দলে ফিরেছেন। সেপ্টেম্বরে অসমাপ্ত আসর মাঠে গড়ালে তাতে অংশ নেওয়া হবে না অনেক বিদেশি ক্রিকেটারেরই। সেই তালিকায় আছেন সাকিব আল হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমানও।

জাতীয় দলের খেলা থাকায় আইপিএলের বাকি অংশে তাদের এনওসি দিবে না বিসিবি। আর তাই সাকিব ও মুস্তাফিজের বেতনের টাকায় কেটে রাখা হচ্ছে। আইপিএলের বিদেশি ক্রিকেটাররা আসরের বাকি অংশে অংশ না নিলে তাদের পারিশ্রমিক কেটে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিসিআই।

আইপিএলে খেলোয়াড়দের বেতন দেওয়া হয় তিন ধাপে। মূলত সেই অর্থ পরিশোধ করা হয় বীমার মাধ্যমে। দলগুলো খেলোয়াড়দের সাথে চুক্তির সময়ই বীমার কথা উল্লেখ করা হয়। সেই অনুযায়ী, কোনো কারণে নির্ধারিত সময়ে খেলা না হলেও খেলোয়াড়রা টাকা পাবেন। যেহেতু বিসিসিআই নিজেদের ব্যর্থতার কারণে নির্ধারিত সময়ে আইপিএল সম্পন্ন করতে পারেনি, তাই খেলোয়াড়দেরও পুরো টাকা পাওয়ার কথা।

কিন্তু আড়াই হাজার কোটি রুপি লোকসানের পথে থাকা বিসিসিআই বিদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে যারা অনুপস্থিত থাকবেন তাদের বেতন কেটে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিসিসিআইয়ের শীর্ষস্থানীয় এক কর্মকর্তা ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘হ্যাঁ, এটা ঠিক যে তাদের টাকা কেটে রাখা হবে।

যদি কোনো কারণে কোনো বিদেশি ক্রিকেটার সংযুক্ত আরব আমিরাতে আইপিএল খেলতে না যান,তবে ফ্র্যাঞ্চাইজিরা চুক্তি অনুযায়ী তাদের পারিশ্রমিক কেটে নিতে পারে। যতগুলো ম্যাচে তারা দলের সঙ্গে ছিলেন, সেই অনুযায়ী তাদের পারিশ্রমিক দেওয়া হবে।’

আগামী সেপ্তেম্বর-অক্টোবরে সংযুক্ত আরব আমিরাতে আইপিএল আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিসিআই। আসরের অর্ধেক অংশে অংশ নেওয়ায় সাকিব ও মুস্তাফিজ তাদের পারিশ্রমিকের অর্ধেক পেতে পারে। সাকিবকে ৩ কোটি ২০ লাখ রুপিতে কলকাতা নাইট রাইডার্স ও মুস্তাফিজকে ১ কোটি রুপিতে রাজস্থান রয়্যালস দলভুক্ত করেছিল।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*