সাকিবের দুর্দান্ত ফিনিশিংয়ে কোয়ালিফায়ারে কলকাতা

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) চতুর্দশ আসরের এলিমিনেটর ম্যাচে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরকে ৪ উইকেটে হারিয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। এই জয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে খেলার যোগ্য অর্জন করলেন সাকিব আল হাসানরা। অন্যদিকে ব্যাঙ্গালোরের বিদায় ঘণ্টা বেজে গেছে এই পরাজয়েই।

শারজায় টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৩৮ রান জড়ো করে কলকাতা। বল হাতে রানের লাগাম টেনে ধরা সাকিব ৪ ওভারে কোনো উইকেট না পেলেও খরচ করেন মাত্র ২৪ রান। তার সৃষ্টি করা চাপে পড়ে খেই হারানো ব্যাঙ্গালোর অসহায় ছিল সুনীল নারাইন, বরুণ চক্রবর্তীর সামনেও।

নারাইন মুড়িমুড়কির মত উইকেট শিকার করতে থাকলে আরও কোণঠাসা হয়ে পড়েন বিরাট কোহলিরা। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ রান আসে কোহলির ব্যাট থেকে। ৩৩ বলের মোকাবেলায় ৩৯ রান করেন তিনি। ১৮ বলে ২১ রান করেন দেবদূত পাড়িকাল।

কলকাতার পক্ষে নারাইন চারটি ও লকি ফার্গুসন দুটি উইকেট শিকার করেন।জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ৪১ রান পায় কলকাতা। ১৮ বলে ২৯ রান করে বিদায় নেন শুবমান গিল। রাহুল ত্রিপাঠিও থিতু হতে পারেননি। ভেঙ্কাটেশ আইয়ারও বিদায় নেন ৩০ বলে ২৬ রান করে।

ব্যাঙ্গালোর যখন কলকাতাকে চাপে ফেলার স্বপ্ন দেখছে, তখন ক্রিজে এসেই মারমুখী ব্যাটিং শুরু করেন নারাইন। ড্যান ক্রিশ্চিয়ানের ওভারে নিজের মোকাবেলা করা প্রথম তিন বলেই ছক্কা হাঁকান। তার ব্যাটিং তাণ্ডবে ম্যাচ হেলে পড়ে কলকাতার দিকে।

তবে নাটকীয়তার তখনও বাকি। নিতিশ রানা ২৫ বলে ২৩, নারাইন ১৫ বলে ২৬ ও দীনেশ কার্তিক ১২ বলে ১০ রান করে বিদায় নেন। ১৩ বলে ১২ রান প্রয়োজন- এমন সমীকরণকে সামনে রেখে দায় বর্তায় অধিনায়ক ইয়ন মরগান ও সাকিব আল হাসানের কাঁধে।

১৯তম ওভারে কলকাতা জড়ো করে মাত্র ৫ রান। দুটি ডট বল খেলেন মরগান। ৩ বলে ৩ রানে অপরাজিত সাকিব শেষ ওভারের প্রথম বল মোকাবেলা করেন। ড্যান ক্রিশ্চিয়ানের করা প্রথম বলেই চার হাঁকান বাংলাদেশি ক্রিকেটার। পরের বলে নেন সিঙ্গেল। তৃতীয় বলে সিঙ্গেল নিয়ে আবারও সাকিবকে স্ট্রাইক ফিরিয়ে দেন মরগান।

ওভারের চতুর্থ বলে সাকিবের ব্যাট থেকেই আসে জয়সূচক রান। কলকাতা পায় ৪ উইকেটের শ্বাসরুদ্ধকর জয়। ৬ বলে ৯ রান করে অপরাজিত থাকেন সাকিব। ৭ বলে ৫ রান করে অপরাজিত থাকেন মরগান।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*