সাকিবকে নিয়ে সুখবর পেল বাংলাদেশ

টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে সুখবর পেল বাংলাদেশ দল। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে দ্বিতীয় টেস্টে সাকিব আল হাসানকে দলে পাচ্ছে টাইগাররা। সব ধরনের শঙ্কাকে পেছনে ফেলে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে খেলছেন সাকিব আল হাসান। মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) সংবাদমাধ্যমকে এমনটাই জানিয়েছেন বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস।

পরিবারের অসুস্থ সদস্যদের পাশে থাকতে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের ওয়ানডে সিরিজ শেষে দেশে ফিরে আসেন সাকিব আল হাসান। দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে প্রথমবার কোনো ফরম্যাটে এটাই প্রথম সিরিজ জয় ছিল বাংলাদেশের। তাই টেস্ট সিরিজের আগে সাকিবকে হারানোতে আক্ষেপ ঝরেছিল বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকের কণ্ঠে।

তবে প্রথম টেস্টে সাকিবকে না পাওয়া গেলেও দ্বিতীয় টেস্টে দলে পাওয়ার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছিল বিসিবি। এবার সাকিবকে দ্বিতীয় টেস্টে পাওয়া যাচ্ছে, তা নিশ্চিত করলেন জালাল ইউনুস। ২০১৯ সাল থেকে শুরু করে নানা অজুহাত দেখিয়ে টেস্টে ছিলেন না সাকিব।

এরই মাঝে মুমিনুলকে অধিনায়ক করে বাংলাদেশ টেস্ট খেলেছে ১৩টি। তবে ইনজুরি ও নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরলেও মাত্র তিনটি টেস্ট খেলেছেন বাংলাদেশের সেরা খেলোয়াড় সাকিব। আর তাই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্টে না থাকায় কোনো সমস্যা দেখছেন না বাংলাদেশের টেস্ট দলের অধিনায়ক।

মুমিনুল বলেন, ‘উনি (সাকিব) প্রায় সময়ই তো থাকেন না। থাকাটাই বরং সৌভাগ্যের মনে হয় (হাসি)। উনি থাকলে টিম কম্বিনেশন অনেক সহজ হয়ে যায়। একজন অতিরিক্ত ব্যাটসম্যান বা বোলার খেলানো যায়। এখন যেহেতু নেই, যারা আছে, যে অস্ত্র আছে তাদের কাজে লাগিয়েই ম্যাচ জেতার চেষ্টা করতে হবে।’

এবারের দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে টেস্ট সিরিজটি খেলতেন সাকিব। তবে পরিবারের পাঁচ সদস্য অসুস্থ হয়ে পড়ায় ওয়ানডে সিরিজ শেষেই দেশে ফিরে আসেন তিনি। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে থাকছেন না সাকিব এটা তো নিশ্চিত, দ্বিতীয় টেস্টেও থাকবেন কিনা এটাও শিওর নন মুমিনুল।

তবে মুমিনুল আত্মবিশ্বাস পাচ্ছেন পেসারদের সাম্প্রতিক ফর্ম নিয়ে। তিনি বলেন, ‘সবাই জানে আমাদের পেস বোলিং এখন ভালো। একই সঙ্গে ওদের চ্যালেঞ্জটাও নিতে হবে। এটার পেছনে অনেক সময় লেগেছে আমাদের, লম্বা সময় লেগেছে। খেলতে খেলতে আরও অভিজ্ঞ হবে ওরা, তখন আরও সহজ হবে।’

দক্ষিণ আফ্রিকায় স্পিনারদের চেয়ে পেসাররাই বেশি ছড়ি ঘোরান। পেস অ্যাটাক দিয়েই নিউজিল্যান্ডে টেস্ট জয়ের স্বাদ পেয়েছিল টাইগাররা। ফলে এবারও যদি টেস্টে পেসাররা ভালো করতে পারে, তবে দেশের বাইরে আরেকটি সাফল্য আসতে পারে। ৩১ মার্চ থেকে শুরু হবে দক্ষিণ আফ্রিকা ও বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট ম্যাচ।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*