শ্রীলঙ্কায় রাতারাতি খলনায়ক মাহেলা জয়বর্ধনে


স্পোর্টস ডেস্ক: গত বছর অস্ট্রেলিয়ায় আয়োজিত টি-২০ বিশ্বকাপে একেবারে জঘন্য পারফরম্যান্স করেছিল শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল। এরপর গোটা বিষয়টির তদন্ত করার জন্য একটি স্বতন্ত্র প্যানেল গঠন করা হয়েছিল। সেই প্যানেল অবশেষে রিপোর্ট জমা দিয়েছে।

সেই রিপোর্টে অভিযুক্তের কাঠগড়ায় শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলকে তোলা হয়েছে। তবে সবথেকে বেশি আঙুল উঠেছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক তথা দলের কনসালট্যান্ট কোচ মাহেলা জয়বর্ধনের দিকে। গত বিশ্বকাপে সুপার ১২ পর্যায়েও উঠতে পারেনি লঙ্কা ব্রিগেড।


অস্ট্রেলিয়ায় আয়োজিত এই টুর্নামেন্টের গ্রুপ পর্যায়ে নক্কারজনক পারফরম্যান্সের পর চতুর্থ স্থানে শেষ করার জন্য পরের রাউন্ডে আর কোয়ালিফাই করতে পারেনি। শ্রীলঙ্কার এই বিশ্বকাপ সফরে একাধিক বিতর্ক তৈরি হয়েছে। প্রথম ম্যাচেই তারা নামিবিয়ার কাছে হেরে যায়।

এরপর দলের প্রধান ব্যাটার দানুষ্কা গুণলতিকা যৌ’ন নি’র্যা’তনের অভিযোগে অস্ট্রেলিয়ায় গ্রে’ফতার হন। এরপর দল থেকেও তাকে বাদ দেওয়া হয়। এই প্যানেল বিশ্বকাপ চলাকালীন মাঠের বাইরে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের আচরণ নিয়ে একাধিক তদন্ত করে।

সেখানে একদিকে যেমন পাওয়া গিয়েছে দলের বোলিং অলরাউন্ডার চামিকা করুণারত্নে দলের ৬ সতীর্থের সঙ্গে একটি ক্যাসিনোয় গিয়েছিলেন। সেখানে তারা ঝামেলায় জড়িয়েও পড়ে। তেমনই অন্যদিকে জানা গিয়েছে যে বোর্ডের টাকায় অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে রেস্তোরাঁ উদ্বোধন করেছিলেন মাহেলা জয়বর্ধনে।



৬৩ পাতার এই রিপোর্টে গোটা ঘটনার পুঙ্খানুপুঙ্খ বর্ণনাও দেওয়া হয়েছে। এঘটনায় শ্রীলঙ্কায় রাতারাতি খলনায়ক মাহেলা জয়বর্ধনে। ২০২২ টি-২০ ক্রিকেট বিশ্বকাপে কনসালটেন্ট কোচের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছিল সাবেক অধিনায়ক মাহেলা জয়বর্ধনের উপরে।

ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে, তার ‘মিনিস্ট্রি অফ ক্র্যাব’ রেস্তোরাঁর একটি শাখা তিনি অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে খুলেছিলেন। যদিও শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের টাকাতেই তিনি অস্ট্রেলিয়া গিয়েছিলেন। মাহেলা জয়বর্ধনে এখনও বিষয়টা নিয়ে মন্তব্য করেননি।

Sharing is caring!