শাবানা-ববিতাও সেলিব্রেটি, তারা পরীমনির মতো ক্লাবে যাননি

চিত্রনায়িকা পরীমনির ধ’র্ষ’ণ ও হ’ত্যা’চেষ্টার মামলা চলমান রয়েছে। এ ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও তুহিন সিদ্দিকী অমির পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল বুধবার (২৩ জুন) পরীমনির ধর্ষণ ও হ’ত্যা’চেষ্টার অভিযোগে সাভার থানার মামলার রিমান্ড শুনানি হয়।

শুনানি শেষে প্রধান অভিযুক্ত নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও তুহিন সিদ্দিকী অমির পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাজিব হাসান। এ মামলায় ওই দুই আসামির রিমান্ড আবেদনের বিরোধিতা করে তাদের আইনজীবী রাত ১২টার পর পরীমনির ক্লাবে যাওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

সেই সঙ্গে পরীমনি সেলিব্রেটি তকমা গায়ে মেখে অন্যদের ভিকটিমাইজড করেছেন বলেও আদালতকে জানান তিনি। আসামীর আইনজীবী বলেন, শাবানা, ববিতা, রোজিনাও নায়িকা ছিলেন। তাদের আমরা শ্রদ্ধা করি। তারা কোনো ক্লাবে যাননি। তিনি কেন রাত ১২টার পর ক্লাবে যাবেন। আসামিরা ভালো মানুষ।

বিপদে পড়ে গেছেন। হয়রানি করতে মামলা দেওয়া হয়েছে। রিমান্ড বাতিল চেয়ে তাদের জামিন চাচ্ছি। এরপর রাষ্ট্রপক্ষের আরেক আইনজীবী বলেন, পরীমনি স্বনামধন্য সেলিব্রেটি। আক্রমণ করার মূল উদ্দেশ্য ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিকে ধ্বংস করা। ইন্ডাস্ট্রিতে পরীমনির ভবিষ্যৎ ধূলিস্মাৎ করে দিছে।

দুপক্ষের শুনানি শেষে নাসির উদ্দিন বলেন, আমার বয়স ৬৫। অ্যাজমাসহ বিভিন্ন রোগে ভুগছি। গত ৯ দিন ডিবির রিমান্ডে ছিলাম। এখন আবার আমাকে রিমান্ডে পাঠানো হলে মনে হয় না আর বাঁচব। এরপর আদালত প্রত্যেকের পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*