লকডাউনের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন

করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি ঠেকাতে সারা দেশে আগামী সোমবার (২৮ জুন) থেকে সাতদিনের ‘কঠোর লকডাউন’ শুরু হওয়ার কথা থাকলেও সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হয়েছে। আগামী বৃহস্পতিবার (০১ জুলাই) থেকে সারা দেশে শুরু হবে ‘সর্বাত্মক লকডাউন’। লকডাউনে জরুরি পরিষেবা ছাড়া সব সরকারি-বেসরকারি অফিস বন্ধ থাকবে। শনিবার (২৬ জুন) রাতে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিস্তারিত আসছে…

আরও পড়ুন: লকডাউনে সব কাস্টমস হাউস খোলা থাকবে দেশে মহামারি করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে সোমবার (২৮ জুন) থেকে সাতদিনের জন্য ‘কঠোর লকডাউনের’ ঘোষণা দিয়েছে সরকার। এসময় জরুরি পরিষেবা ছাড়া সব সরকারি-বেসরকারি অফিস বন্ধ থাকবে। এর ফলে স্থল, সমুদ্র ও আকাশপথে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে দেশের সব কাস্টম হাউস ও শুল্ক স্টেশন খোলা থাকবে। একই সঙ্গে দেশের সব স্থলবন্দরও খোলা থাকবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) পরিচালক (তথ্য) সৈয়দ এ মুমেন শনিবার (২৬ জুন) সংবাদমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এনবিআর পরিচালক জানান, কিছুদিন আগে এনবিআরের কার্যক্রমকে জরুরি সেবার আওতায় আনা হয়েছে। তাই সরকার ঘোষিত লকডাউনের মধ্যেও কাস্টম হাউস ও শুল্ক স্টেশনের কার্যক্রম সচল থাকবে।

বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, দেশের সব কটিই স্থলবন্দর লকডাউনের সময় খোলা থাকবে। ১২টি স্থলবন্দরেই স্বাভাবিক কার্যক্রম চলবে। শুক্রবার (২৫ জুন) রাতে জরুরি তথ্য বিবরণীতে তথ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, কোভিড ১৯ সংক্রমণ রোধকল্পে সোমবার থেকে পরবর্তী ৭ দিন পর্যন্ত সারা দেশে কঠোর লকডাউন পালন করা হবে।

এ সময় জরুরি পরিষেবা ছাড়া সব সরকারি-বেসরকারি অফিস বন্ধ থাকবে। জরুরি কারণ ছাড়া বাড়ির বাহিরে কেউ যেতে পারবেন না। জরুরি পণ্যবাহী ব্যতীত সব প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। শুধু অ্যাম্বুলেন্স ও চিকিৎসা সংক্রান্ত কাজে যানবাহন চলাচল করতে পারবে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*