যে আমল করলে ফেরেশতারা আল্লাহর কাছে আপনার কথা বলবে

ইসলামি আকীদা অনুযায়ী জীবন পরিচালনা করলে ইহকালীন ও পরকালীন দুই জগতেই মুক্তি পাওয়া যায়। এমনকি নাজাতের পথ পরিষ্কার হয়ে যায়। আখিরাতে মহানবী রাসুল (সা.) তার সকল উম্মতের জন্য সুপারিশ করবে।

কখনো কখনো ফেরেশতারাও মহান রাব্বুল আলআমিনের নিকট বান্দার সম্পর্কে কথা বলেন। কিন্তু এর জন্য রয়েছে কিছু আমল। আপনি কি চান ফেরেশতারা আপনার কথা আল্লাহকে বলুক?

হাদিস শরীফে এসেছে, আবু হুরাইরাহ (রাঃ) থেকে বর্ণিত- তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন, “তোমাদের নিকট দিবারাত্রি ফেরেশতাবর্গ পালাক্রমে যাতায়াত করতে থাকেন। আর ফজর ও আসরের নামাযে তারা একত্রিত হন।

অতঃপর যারা তোমাদের কাছে রাত কাটিয়েছেন, তারা ঊর্ধ্বে (আকাশে) চলে যান। অতঃপর আল্লাহ তাআলা তাদেরকে জিজ্ঞাসা করেন (অথচ আল্লাহ ওই সকল বান্দাদের সম্পর্কে ভালভাবে পরিজ্ঞাত) ‘তোমরা আমার বান্দাদেরকে কী অবস্থায় ছেড়ে এসেছ?’ তারা বলেন, ‘আমরা যখন তাদেরকে ছেড়ে এসেছি, তখন তারা নামাযে প্রবৃত্ত ছিল। আর যখন আমরা তাদের নিকট গিয়েছিলাম, তখনও তারা নামাযে প্রবৃত্ত ছিল।”

সমস্ত বর্ণনায় হাদিসটিকে সহিহ হাদিস হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। (বুখারী ৫৫৫নং, মুসলিম ১৪৬৪নং, নাসাঈ ৪৮৫, আহমাদ ৭৪৯১, ইবনে খু্যাইমা ৩২১নং এবং হাদিস সম্ভার, হাদিস নং ৬৪৮।

উক্ত হাদিস থেকে প্রমাণিত হয় যে, ফেরেশতারা সর্বদা আমাদের মাঝে যাতায়াত করেন। আর ফজর ও আসরের নামাজ যারা জামায়াতের সাথে আদায় করেন আল্লাহপাক তাদের সম্পর্কে ফেরেশতাদের কাছে জিজ্ঞাসা করেন। তখন ওই ফেরেশতারা আল্লাহপাকে কাছে সেসব বান্দাদের নাম বলেন, যারা ফজর ও আসরের নামাজ জামায়াতে পড়েছিল।

Sharing is caring!