যুদ্ধে পরাজয়ের স্বীকারোক্তি দিয়ে যা বললেন বাইডেন!

পরোক্ষভাবে আফগান যু’দ্ধে আ’মেরিকার পরাজয় স্বীকার করে নিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তিনি আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত সমর্থন করে বলেছেন, আগামী ৩১ আগস্টের মধ্যে দেশটি থেকে সব মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে। আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের মূল সময়সীমা ছিল ১১ সেপ্টেম্বর।

তিনি বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউজে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আফ’গানি’স্তানে সেনা মোতায়েন করে রাখার অর্থ হবে আরও বেশি প্রাণহানি। বাইডেন স্পষ্ট করে বলেন, “[এতদিন যা কিছু হয়েছে তা থেকে] ভিন্ন কোনও ফলাফল আসার যুক্তিপূর্ণ কারণ পাওয়া না গেলে আমি আর কোনও মার্কিন সেনাকে আফ’গানি’স্তানে পাঠাব না।”

বাইডেন ‘ভিন্ন কোনও ফলাফল’ পরিভাষা ব্যবহার করে আনুষ্ঠানিকভাবে একথার স্বীকারো’ক্তি দিয়েছেন যে, আফ’গানি’স্তানে গত ২০ বছরের মার্কিন সেনা উপস্থিতির ফলাফল শূন্য। মার্কিন বাহিনী ভিয়েতনাম যু’দ্ধে’র মতো আফগান যু’দ্ধে’ও পরাজিত হয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার দিনের শু’রুতে মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর পে’ন্টাগন জানায়, এরইমধ্যে যু’দ্ধ’বি’ধ্বস্ত আ’ফগানি’স্তান থেকে ৯০% সেনা প্রত্যাহার সম্পন্ন হয়েছে। গত সপ্তাহে আ’ফগান কর্তৃ’পক্ষকে কোনও রকম তথ্য না দিয়ে মধ্যরাতে আফগা’নিস্তানের প্রধান সামরিক ঘাঁ’টি বাগরাম থেকে সেনা প্রত্যাহার করে নেয় আমেরিকা।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট তার সংবাদ সম্মেলনে আরও বলেন, “একটি একক আফগান সরকারের নিয়ন্ত্রণে গোটা দেশ পরিচালিত হবে এমন সম্ভাবনা অত্যন্ত ক্ষীণ।” একইসঙ্গে তিনি একথাও বলেন, “গোটা দেশ তালেবান দখল করে নিয়ে আগের মতো এককভাবে রাষ্ট্র পরিচালনা করবে- সে আশঙ্কাও নেই বললেই চলে।”

বাইডেন বলেন, এখন আফগান জনগণই ঠিক করবে কোন সরকারের মাধ্যমে তাদের দেশ পরিচালিত হবে। বাইরে থেকে বিষয়টি চাপিয়ে দেওয়া যাবে না। চলতি মাসের গোড়ার দিকে আফগানিস্তানের বিভিন্ন জেলায় তালেবান ব্যাপকভাবে হামলা শুরু করেছে। তারা দেশটির শতাধিক জেলা দখল করে নেওয়ার দাবি করেছে।

Sharing is caring!