মেসি, নেইমার, এমবাপেকে নিয়েও হারলো পিএসজি

বিশ্বকাপ ও ‘গোল্ডেন বল’ বিজয়ী লিওনেল মেসি, ব্রাজিলের সেরা ফরোয়ার্ড নেইমার, বিশ্বকাপে ‘গোল্ডেন বুট’ জেতা ফরাসি তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পেকে, মরক্কোর রাইটব্যাক আশরাফ হাকিমিকে নিয়েও রেনের সঙ্গে পেরে উঠলো না জায়ান্ট প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি)। এদিন ১-০ গোলে রেনের কাছে হারে এই ফরাসি জায়ান্ট।


রেনের মাঠে লিগে এই নিয়ে সবশেষ চার ম্যাচের তিনটিতে হারের স্বাদ পেলো প্যারিসের তারকায় ভরা এই দলটি। তবে এর আগের হারটি এমবাপ্পের ঘাড়ে দিয়ে ক্ষণিকের সান্ত্বনা খুঁজলেও এবার পিএসজি সমর্থকরা একেবারেই হতবাক।

লিওনেল মেসি ও নেইমারকে শুরুর একাদশে রাখলেও ছুটি কাটিয়ে ফেরা কিলিয়ান এমবাপেকে বেঞ্চে রাখেন পিএসজি কোচ। ২০তম মিনিটে গোলের জন্য প্রথম শট নিতে পারে পিএসজি। বক্সের সামনে থেকে মেসির বাম পায়ের সেই শট ক্রসবারের ওপর দিয়ে উড়ে যায়।



বিরতির আগে ভালো একটি সুযোগ তৈরি করে পিএসজি। বক্সের ভেতর মেসির প্রচেষ্টা প্রতিহত হয় রক্ষণে।প্রথমার্ধে গোল শূন্য স্কোর নিয়ে বিরতিতে যায় রেনে ও পিএসজি। বিরতির পর ৬৫ মিনিটে ব্যবধান বাড়ান রেনের হামারি।

বিরতির পর ৫৬তম মিনিটে জোড়া পরিবর্তন আনেন গালতিয়ে। উগো একিতিকে ও নর্দি মুকিয়েলের জায়গায় নামান এমবাপে ও আশরাফ হাকিমিকে। মাঠে নেমে দলকে ম্যাচে ফেরানোর সুবর্ণ সুযোগ হারান ফরাসি তারকা এমবাপে।



৮২তম মিনিটে বক্সের ভেতর থেকে হুয়ান বের্নাতের জোরাল শটে বল এক হাতে ক্রসবারের ওপর দিয়ে পাঠান রেনের গোলরক্ষক। ম্যাচে লক্ষ্যে পিএসজি একমাত্র শট এটিই।

১৯ ম্যাচে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে পিএসজি। সমান ম্যাচে ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে লঁস। তাদের চেয়ে ২ পয়েন্ট কম নিয়ে তিনে মার্সেই। আর সমান ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে মোনাকো চারে ও রেন পাঁচ নম্বরে আছে।

Sharing is caring!