মসজিদ নির্মানের জন্য জমি দান করলেন হিন্দু ব্যক্তি!

ঝিনাইদহ কালীগঞ্জে এক প্রবীন ব্যক্তি সনাতন হিন্দু ধর্ম পরিবারের সন্তান হয়ে ও মুসলিম পরিবারের দু,বার ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান করার জন্য জমি দিয়ে আলোচিত ব্যাক্তি হয়েছেন। তিনি কালীগঞ্জ উপজেলার বারোপাকিয়া গ্রামের জগবন্ধু ঘোষ সনাতন পরিবারের সন্তান কিন্তু এলাকায় মুসলিম সম্পদায়ের মসজিদ নির্মানের জন্য নিজের ৮ শতক জমি দান করে এলাকার মানুষের কাছে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে এসেছেন।

কালীগঞ্জ উপজেলার নিয়ামতপুর ইউনিয়নের বারোপাখিয়া গ্রামে জন্ম জগবন্ধু ঘোষের। পেশায় কৃষক হলেও তেমন আর্থিক স্বচ্ছল বিদ্যান ব্যক্তি ছিলেন না। কিন্ত তিনি ছিলেন মানবিক জ্ঞান সম্পন্য একজন পরউপোকারী নির্ভেজাল খাটি মানুষ। যে মানুষটার মধ্য গরীব দুঃখি মানুষের জন্য ছিলো পরম ভালবাসা ভরা একটি মন।

তিনি পবিত্র ধর্ম ইসলামের অনুসারী না হলেও তার এলাকার গরীব মুসলিম সম্পদায়ের ভায়েদের ধর্ম কর্ম পরিচালনা করার যে কষ্ট তা দেখে চুপ করে বসে থাকতে পারেনি তাই নিজের সম্পতির অংশের ৮ শতাংশ জমি নিজ গ্রামের মুসলিম সম্পদায়ের মসজিদ নির্মানের জন্য দান করেন।

তিনি এই সহানুভবতার পরিচয় দিয়ে কালীগঞ্জ বাসীর কাছে এক অনুকরনীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন। তার মসজিদ নির্মানের জমি দান এলাকার মানুষের মাঝে ব্যাপক আলোচনার জম্ম দেয়, তিনি ইতিপূর্বে পাশে নরেন্দ্রপুর গ্রামে ঈদগাঁ নির্মানেও তিনি জমি দান করেন। এলাকার সকল মানুষ তার এই মহৎ কাজটির জন্য সকলেই মন থেকে শুভকামনা সহ তাকে বিভিন্ন মাধ্যমে অভিনন্দন জানান।

এবিষয়ে সরাসরি বৃদ্ধ জগবন্ধু ঘোষের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, এলাকায় মুসলিম পরিবারে ঈদের নামাজ ও মসজিদ করার জন্য কেউ জমি দিতে রাজি না হবার কারনে আমি নিজেই জমি দু,টি দান করেছি। দু,টি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে জমি দিতে পেরে আমি খুব খুশি।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *