ভারতে বাধার মুখে বিশ্বকাপ আয়োজনের সুযোগ হারাতে পারে বাংলাদেশ

আট বছরে ১ বার আইসিসি টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে পারবে যে কোনো দেশ। এমন নিয়ই করেছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি। আইসিসির এমন নিয়মের বিরোধিতা করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। এই বিষয় নিয়ে ভারতের সাথে রয়েছে ক্রিকেটের দুই মোড়ল ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া।

২০১১ সালে ওয়ানডে ইন্টারন্যাশনাল ও ২০১৪ সালে টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করে বাংলাদেশ। এর পরের সাত বছরে কেটে গেছে কিন্তু বিশ্বকাপ আয়োজন কবে করবে বাংলাদেশ সেটা এখনও জানে না কেউই। তবে আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী দ্রুতই বিশ্বকাপ আয়োজন করার কথা ছিলো বাংলাদেশের। তবে ভারত, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া আইসিসির আইন মানতে নারাজ।

আইসিসির নতুন নিয়ম অনুযায়ী ২০২৩ থেকে ৩১ পর্যন্ত আইসিসি টুর্নামেন্টে ভেন্যু নির্বাচনে নতুন পদ্ধতি অনুসরনের চিন্তা করছে আইসিসি। যেখানে ৮ বছরে ১ বার আইসিসি টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে পারবে যেকোনো সদস্য দেশ, তবে শহর নির্বাচন হতে হবে বিডিংয়ের মাধ্যমে।

যেহেতু ৮ বছরে ১ দেশের দ্বিতীয়বার আয়োজনের সুযোগ নেই, তাতেই বিশ্বকাপ আয়োজনের প্রবল সুযোগ মিলবে বাংলাদেশের।আইসিসির এই পদ্ধতির বিরোধিতা করেছে ভারত। তারা চেষ্টা করছে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডকে নিজেদের পাশে রেখে আইসিসির এই আইনের কার্যকরিতা নষ্ট করার।

এই ব্যপারে আইসিসির সাবেক সভাপতি এহসান মানি বলেন, করোনার কারণে ২০২০ থেকে এশিয়া কাপ ২০২১ সালে নিয়ে আসা হয়। কিন্তু এখন মনে হচ্ছে এই বছরও এশিয়া কাপ আয়োজন সম্ভব হবে না। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের তারিখের সাথে মিলে যাওয়ায় পরের বছর গড়াতে পারে এশিয়া কাপ।

তবে সেটি অনেকটাই নির্ভর করবে ভারতের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে উঠার উপর। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে জয় অথবা ড্র পেলে ফাইনাল নিশ্চিত হবে ভিরাট কোহলির দল।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*