ভারতীয় সিনেমা হলে ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ স্লোগান, অতঃপর..

.বলিউড সিনেমা ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ – এর আয় এখন ১০০ কোটি ছাড়িয়ে। গত ১১ মার্চ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির পর ১০ দিন পেরিয়ে গেলেও সিনেমাটি নিয়ে হইচই থামছে না। এ নিয়ে বিতর্কও তুঙ্গে। প্রতিদিনই কোনো না কোনো নতুন ঘটনার সাক্ষী থাকছে এ ছবি। এবার সিনেমাটি প্রদর্শনকালে হলেই ঘটল এক বিতর্কিত ঘটনা।

হলে ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ স্লোগান দিয়ে বসলেন দুই দর্শক। আর এমন কাণ্ড করে উত্তেজিত দর্শকদের হাতে মারধরের শিকার হন তারা। ঘটনাটি ঘটেছে তেলেঙ্গানার আদিলাবাদ জেলার নটরাজ সিনেমা হলে। ঘটনাটির একটি ভিডিও এখন টুইটারে ভাইরাল। টাইমস অব ইন্ডিয়া খবর, নটরাজ সিনেমা হলে ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ সিনেমা চলাকালে ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ স্লোগান দেন দুই দর্শক।

সঙ্গে সঙ্গে ঘটনার প্রতিবাদ করেন হলে উপস্থিত অন্যান্য দর্শক। ওই দুজনকে ধরে উত্তমমধ্যম দেন তাদের পাশে বসা দর্শকদের অনেকেই। এ সময় ব্যাপক হট্টগোলে সিনেমা দেখানো বন্ধ হয়ে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ডাকেন হলম্যানেজার। তবে পুলিশ আসার আগেই হল ছেড়ে পালিয়ে বাঁচেন ওই দুই দর্শক।

আদিলাবাদের পুলিশ সুপার ডি উদয় কুমার জানান, অভিযুক্তদের পরিচয় জানা যায়নি। এ ঘটনায় কোনো লিখিত অভিযোগও দায়ের হয়নি। ঘটনার জেরে প্রায় ১৫ মিনিটের জন্য সিনেমা প্রদর্শন বন্ধ ছিল। বিবেক অগ্নিহোত্রী পরিচালিত ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ সিনেমায় নব্বইয়ের দশকে কাশ্মীর থেকে কীভাবে কাশ্মীরি পণ্ডিতদের উৎখাত করা হয়েছিল, কীভাবে পরিবারগুলোর ওপর নিপীড়ন চলেছিল, সেই চিত্র ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।

এতে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন মিঠুন চক্রবর্তী, অনুপম খের, পল্লবী যোশী, দর্শন কুমারের মতো তারকারা। সিনেমাটি মুক্তির পর পরই এ নিয়ে ভারতের রাজনীতির মাঠ উত্তপ্ত। সিনেমাটি দেখতে নিষেধ করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্যদিকে সিনেমায় কিছু মিথ্যা তথ্য দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছেন কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ।

ভারতের ন্যাশনাল কনফারেন্সের ভাইস প্রেসিডেন্টের দাবি, ‘নির্মাতারা সন্ত্রাসের মোকাবিলা করতে গিয়ে মুসলিম-শিখদের বলিদানকে অস্বীকার করেছে। সত্যকে লুকিয়েছে। কারণ যখন কাশ্মীরি পণ্ডিতরা ঘরছাড়া হন, তখন ফারুক আবদুল্লাহ মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন না। তখন জগমোহন ছিলেন জম্মু ও কাশ্মীরের রাজ্যপাল। আর তখন ভিপি সিংয়ের সরকার ছিল কেন্দ্রে। সেটি ছিল বিজেপি সমর্থিত সরকার।’

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*