ভয়াবহ দাবানল, ১৫ মিনিটেই পুড়ল পুরো গ্রাম!

করো’না মহা’মা’রির এই সময় স্মরণকালের রেকর্ড তাপমাত্রায় গত ২৬ জুন থেকে তীব্র দা’বদা’হ বয়ে যাচ্ছে শীতল দেশ কানাডায়। ৫০ ডিগ্রি ছুঁই ছুঁই তাপমাত্রা অব্যা’হত থাকায় বি’পর্য’স্ত হয়ে পড়েছে দেশটির জনজীবন। তার ওপর এবার উ’ষ্ণতার কা’রণে ছড়িয়ে পড়া দা’বান’লে সেদেশের একটি গ্রামের ৯০ শতাংশ পু’ড়ে গে’ছে।

স্থানীয় পার্লামেন্ট সদস্য ব্রাড ভিসের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, মাত্র ১৫ মিনিটেই ব্রিটিশ কলম্বিয়ার লাইটন ও আশপাশের গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামো পু’ড়ে গে’ছে। পুরো গ্রামে আ’গু’ন ছ’ড়িয়ে প’ড়ায় ব্যা’পক ক্ষ’তির মুখে পড়ে’ছেন সেখানকার বাসিন্দারা। স্থানীয় মেয়র জেন পোল্ডারম্যান বলছেন, জীবন নিয়ে বের হতে পারায় তিনি ভাগ্যবান।

লাইটনে সর্বত্র আ’গুন ছ’ড়িয়ে পড়ে’ছে জানিয়ে স্থানীয় কর্মকর্তারা জানান, চলতি সপ্তাহে গ্রামটিতে তাপমাত্রা ৪৯ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছায়। ফলে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে লোকজনকে অন্যত্র সরিয়ে দেয়ার নির্দেশ দেন মেয়র পোল্ডারম্যান। ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার লিটনসহ সেদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ৪০-৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে উঠানামা করছে তাপমাত্রা।

কানাডীয় আবহাওয়া কর্তৃপক্ষ বলছে, ব্রিটিশ কলাম্বিয়া, অ্যালবার্টা, সাসকাচুয়ান, নর্থওয়েস্টার্ন টেরিটোরিস ও ইউকন রাজ্যে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এসব অঞ্চলে পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, সেখানকার দোকানে বহনযোগ্য এয়ার কন্ডিশনার (এসি) ও ফ্যান মিলছে না। খোলা জায়গায় করো’নার টিকা’দান কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে হাসপাতালগুলো।

পশ্চিম আমেরিকায় থাকা ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় ৫ দিনে গড়ে ৪৮৬ জনের মৃ’ত্যু রে’কর্ড করা হয়েছে, যা সাধারণ সময়ে ছিল ১৬৫ জন। উত্তর আমেরিকার বিভিন্ন অঞ্চলেও নতুন নতুন রেকর্ড গড়ছে তাপমাত্রা। এদিকে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অরিগন রাজ্যের বৃহত্তম পোর্টল্যান্ডে ভয়াবহ দাবদাহ দেখা দিয়েছে। জুনে তাপমাত্রা সর্বকালের রেকর্ড ভেঙে ৪৬ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছায় বলে জানিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

মার্কিন জাতীয় আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, এর আগে শহরটিতে ১৯৬৫ ও ১৯৮১ সালে ৪১ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল। ওই দিন যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটল শহরে তাপমাত্রা ছিল ৩৮ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। চলতি মাসের সবচেয়ে উষ্ণতম দিন ছিল শনিবার। সেইসঙ্গে ইতিহাসে চতুর্থবারের মতো উচ্চ তাপমাত্রার মাইলফলক স্পর্শ হয়।

উষ্ণতা বাড়ার কারণে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া থেকে কা’নাডার আর্কটিক পর্যন্ত ‘হিট ডোম’ দেখা দিয়েছে। অঞ্চলটির অনেক এলাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রার নতুন নতুন রে’কর্ড হচ্ছে। এমতাবস্থায় ‘বি’পজ্জ’নক’ হি’ট লে’ভেলের বিষয়ে নাগরিকদের সতর্ক করেছে কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্র।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*