ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ফাইনাল নিয়ে নতুন তথ্য

পুরো টুর্নামেন্ট হয়েছে শূন্য গ্যালারিতে। আটলান্টিকের ওপারে ইউরোতে রীতিমতো উৎসব চলছে। গ্যালারি উপচে পড়ার অবস্থা ওয়েম্বলিতে। ইতালি ও ইংল্যান্ডের ফাইনালে তো পুরো ৯০ হাজার দর্শককেই গ্যালারিতে ঢুকতে দেওয়ার সম্ভাবনা জেগেছে।

করোনা সংক্রমণ বেশ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসা ইংল্যান্ড সে সাহস দেখাতে পারলেও ব্রাজিল এতটা সাহস দেখাতে পারেনি। বহু সমালোচনার মাঝেও টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে পেরেই সন্তুষ্ট ছিল তারা। সেমিফাইনাল পর্যন্ত সব কটি ম্যাচ হয়েছে শূন্য গ্যালারিতে।

১৪ বছর পর কোপার ফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। এমন উপলক্ষ হাতছাড়া করতে চাচ্ছেন না দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবলের হর্তাকর্তারা। কনমেবল তাই ফাইনালে দর্শক ঢোকানোর অনুমতি চেয়েছিল রিও ডি জেনিরো শহরের কর্তৃপক্ষের কাছে।

সে আবেদনে সাড়া মিলেছে। ইউরোতে গ্যালারির পুরোটাজুড়েই দর্শক থাকার চিন্তাভাবনা থাকলেও কোপা আমেরিকাতে ধারণক্ষমতার মাত্র ১০ শতাংশই ভরা হবে। আগামী রোববারের ফাইনালে গ্যালারিতে থাকবেন সাড়ে ৫ হাজার দর্শক।

মারাকানায় সেদিন দুই দলের পক্ষ থেকে ২ হাজার ২০০ জন মাঠে ঢুকতে পারবেন। অর্থাৎ ব্রাজিলের ২ হাজার ২০০ সমর্থক, আর্জেন্টিনার ২ হাজার ২০০ সমর্থক। তবে এ ম্যাচ দেখার জন্য আর্জেন্টিনা থেকে কারও ব্রাজিলে যাওয়ার সুযোগ নেই।

ব্রাজিলে থাকা আর্জেন্টাইনরাই শুধু ঢুকতে পারবেন মারাকানায়। এর বাইরে ১ হাজার ১০০ টিকিট রাখা হবে অতিথিদের জন্য। মাঠে ঢোকার জন্য দর্শকদের অবশ্য বেশ কিছু শর্ত পালন করতে হবে। শুধু রিও ডি জেনিরো এবং এই শহরের আশপাশের মানুষই সুযোগ পাবেন খেলা দেখার।

স্টেডিয়ামে ঢোকার জন্য সবাইকে করোনা পরীক্ষা দিতে হবে। এ ব্যাপারে ব্রাজিলে আর্জেন্টিনার রাষ্ট্রদূত দানিয়েল সিওলি টিওয়াইসি স্পোর্টসকে বলেছেন, ‘বুয়েনস এইরেস থেকে অনেকেই যোগাযোগ করছে। এটা শুধু ব্রাজিলে বসবাস করা আর্জেন্টাইনদের জন্য।

আজ বিকেল ও আগামীকালে ২০ ডলারের অ্যান্টিজেন পরীক্ষা দিয়েই মারাকানায় যেতে পারবেন তাঁরা।’ রিও শহরের কর্তৃপক্ষ মহামারির এ সময়ে এমন সিদ্ধান্ত কেন নিয়েছে, তার একটা ব্যাখ্যা দিয়েছেন সিওলি, ‘এর আগে কোপা সুদামেরিকানা ও লিবের্তোদোরেসের ফাইনালে স্টেডিয়ামের ধারণক্ষমতার কিছু অংশ দর্শকে পূর্ণ করা হয়েছিল।

সে সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা চলছে। কনমেবলের সিদ্ধান্তেই ধারণক্ষমতার কত আসন ভরা হবে, সে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আমাদের কাছে রিওতে কতজন আর্জেন্টাইন আছেন, সে তালিকা আছে। এরই মধ্যে এ ব্যাপারে আলোচনা শুরু হয়েছে।’ ব্রাজিলে এখন ১৮ হাজার আর্জেন্টাইন আছেন। ফলে ২ হাজার ২০০ আসনের জন্য এমনিতেই কাড়াকাড়ি পড়ে যাবে।

এর মধ্যে খেলোয়াড়দের পরিবারকেও এই হিসাবে নেওয়া হবে কি না, এমন প্রশ্ন উঠেছিল। সিওলি আশ্বস্ত করেছেন, এমনটা হচ্ছে না, ‘তাঁরা ২ হাজার ২০০ দর্শকের বাইরে। তাঁরা সবাই একটি নির্দিষ্ট বক্সে থাকবেন এবং তাঁদেরও সবাইকে করোনা পরীক্ষা দিয়ে আসতে হবে।’

Sharing is caring!