‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ শেষ, মানতেই পারছেন না দর্শক!

জনপ্রিয় নাট্য নির্মাতা কাজল আরেফিন অমির তুমুল আলোচিত সিরিয়াল ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’। সাফল্যের ধারাবাহিকতায় এর ‘চতুর্থ সিজন’ শেষ হয়েছে শনিবার রাতে।শুরু থেকে প্রতিটি পর্ব টানটান উত্তেজনায় রেখে ১১৬ পর্বে এসে সিরিয়ালটি শেষ হয়। ‘সিজন ৪’ এর শেষ পর্ব প্রচার হয়েছে ধ্রুব টিভির ইউটিউবে।

প্রতি এপিসোডের মতো শেষ পর্বটিতে অল্প সময়ে রেকর্ড ভিউস দেখা যায়। দীর্ঘ সিরিয়ালটি শেষ হওয়ায় নিয়মিত দর্শকরা আবেগে ভাসছেন!সামাজিক যোগাযোগ রবিবারের অন্যতম ট্রেন্ডিং টপিক হচ্ছে ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ (সিজন ৪)! শত শত দর্শক মন্তব্যে জানাচ্ছেন, কাবিলা, হাবু, পাশা, শুভ, শিমুলদের শেষ পরিণতি নিয়ে!

নানাভাবে তারা সুখ-দুঃখে নিজেদের মতামত প্রকাশ করছেন। দর্শকদের উচ্ছ্বাসে আবেগপ্রবণ হচ্ছেন পরিচালক অমি নিজেও। তিনি অনুধাবন করছেন, ব্যাচেলর পয়েন্ট ‘সিজন ৪’ দেখা দর্শকদের অভ্যাসে পরিণত হয়ে গেছে। শেষ হওয়ায় লাখ লাখ দর্শক কষ্ট পাচ্ছেন।

কাজল আরেফিন অমি বলেন, দেশ-বিদেশের বিভিন্ন মাধ্যম থেকে লাখ লাখ মানুষের শোক বার্তা পাচ্ছি। বুঝতে পারছি তারা কষ্ট পাচ্ছেন। ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ শেষ দর্শক কোনোভাবেই মানতেই পারছেন না! এসবের মধ্যে অবাক হয়েছি আমার ভার্সিটির স্যারসহ কিছু বিশেষ মানুষ নিয়মিত ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ দেখতেন, কিন্তু আমি জানতাম না। তারা ফোন করে অ্যাপ্রিসিয়েট করেছেন।

দর্শকদের প্রশ্ন ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’-এর নতুন সিজন আসবে কিনা এর জবাবে অমি বলেন, দর্শকরাও আমাকেও একই প্রশ্ন করছেন। নতুন সিজন করতে গেলে লম্বা সময়ের প্রয়োজন। যত্ন নিয়ে ঠিকমতো সময় না দিলে কাজটা ভালো হয় না। শুরু থেকে আমি ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ সময় শ্রম মনোযোগ সবকিছু দিয়ে করেছি। এখন আমার পুরো মনোযোগ ওয়েব সিরিজ ‘হোটেল রিল্যাক্স’ নিয়ে, যেটা জানুয়ারিতে শুটিং করবো। এখন প্রি-প্রডাকশনের কাজ করছি।

তিনি আরও বলেন, হোটেল রিল্যাক্সের পরে আরেকটি ওয়েব সিরিজ করবো। দর্শকের আগ্রহের পাশাপাশি আমার নিজেরও ইচ্ছে আগামীতে সিনেমা নির্মাণ করা। তাই আগামীতে ওয়েব ও সিনেমা নিয়ে ব্যস্ত থাবো। নতুন সিজনের জন্য আমার হাতের কাজগুলোর জন্য এখন লম্বা সময় বের করতে পারছি না। কাজগুলো শেষের পর দর্শক যদি চায় তখন হয়তো আবার পরিকল্পনা করবো। আপাতত ব্যাচেলর রিলেটেড কিছু করবো না, এমনকি বিশেষ ওকেশনেও না।

ফ্রুটিকা নিবেদিত মোশন রকের ব্যানারে মাসুদুল হাসানের প্রযোজনায় ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’র বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেন মারজুক রাসেল, চাষি আলম, মিশু সাব্বির, জিয়াউল হক পলাশ, শরাফ আহমেদ জীবন, শিমুল শর্মা, সাবিলা নূর, ফারিয়া শাহরিন, মনিরা মিঠু, আবদুল্লাহ রানা, ফারিয়া শাহরিন, পারসা ইভানা, মুসাফির বাচ্চু, পাভেল প্রমুখ।

Sharing is caring!