বিয়েটা সেরেই ফেললেন রেলমন্ত্রী, জানুন পাত্রীর পরিচয়!

আবারও বিয়ে করেছেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার প্রায় আড়াই বছর পর দ্বিতীয় বিয়ে করলেন তিনি। গত ৫ জুন উত্তরার একটি রেস্টুরেন্টে ২৫ লাখ টাকা দেনমোহর দিয়ে বিয়ে করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন তার পারিবারিক এক ঘনিষ্টজন। পাত্রীর নাম শাম্মী আকতার। তার বাড়ি দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলায় বলে জানা গেছে।

একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে প্রশাসনিক কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত আছেন শাম্মী আকতার। জানা গেছে, পাত্রীকে আগে থেকেই চিনতেন রেলমন্ত্রী। বিয়েতে পরিবারের কেউ উপস্থিত ছিল না। তাই অনেকটা গোপনেই শুধুমাত্র বন্ধুদের নিয়ে বিয়ের কাজ সেরেছেন মন্ত্রী। শাম্মী আক্তারের আগেও বিয়ে হয়েছিল। ২০১১ সালে ডিভোর্স হয়েছে তার। সেই সংসারে তার একটি কন্যা সন্তান আছে। বর্তমানে তিনি উত্তরায় বসবাস করেন।

মন্ত্রীর ঘনিষ্ট ওইসূত্র আরও জানায়, দ্বিতীয় স্ত্রী শাম্মীর বাড়িতেই অবস্থান করছেন মন্ত্রী। তবে মন্ত্রীর ছেলে-মেয়ে ও পরিবারের ঘনিষ্টজনরা না জানায় ব্যাপারটি এড়িয়ে যাচ্ছেন তিনি। মন্ত্রীর ছেলে-মেয়ে বিয়েতে রাজি না থাকায় পারিবারিক ঝামেলা চলছে বলেও জানান তিনি।

তবে গতকাল রাতে অনেক গণমাধ্যমেই মন্ত্রী দাবি করেছেন, তিনি এখনও বিয়ে করেননি। তবে বিয়ের জন্য পাত্রী খুঁজছেন। অনেকেই সিভি দিচ্ছেন, যাচাই-বাছাই চলছে। কাউকে পছন্দ হলেই বিয়ে করবেন তিনি। শাম্মী আকতারের বিষয়ে মন্ত্রীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অনেক মেয়েই দেখা হচ্ছে। শাম্মী তার পছন্দের তালিকায় রয়েছে।

শাম্মীর ব্যাপারে খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে। বিয়ে করেছেন কি না? এমন প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, কেবল কথা বার্তা এগোচ্ছে। সময় হলে সব জানতে পারবেন। ৬৫ বছর বয়সী নূরুল ইসলাম সুজনের স্ত্রী নিলুফার জাহান ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগ-মুহূর্তে মারা যান।

তাদের এক ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে। তিন সন্তানেরই বিয়ে হয়েছে। নূরুল ইসলাম ১৯৫৬ সালের ৫ জানুয়ারি পঞ্চগড়ে জন্মগ্রহণ করেন। পঞ্চগড়-২ (বোদা-দেবীগঞ্জ) আসন থেকে নবম, দশম এবং একাদশ জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। ২০১৮ সালে নির্বাচিত হওয়ার পর রেলমন্ত্রী হন সুজন। সূত্র: সময় সংবাদ।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*