বিশ্বকাপে ভাগ্য খুলতে পারে সৌম্য-শরিফুলের

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য গত ১৪ সেপ্টেম্বর ১৫ জনের স্কোয়াড ঘোষণা করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নির্বাচকরা। ১৫ জনের সঙ্গে স্ট্যান্ডবাই হিসেবে আরও ৪ জনের নাম ঘোষণা করেন নির্বাচকরা।

মূল স্কোয়াডে না থাকা সৌম্য সরকার এবং শরিফুল ইসলাম ছিলে ৪ জনের স্ট্যান্ডবাইয়ের তালিকায়। এই ১৯ জন নিয়েই দুবাই এবং নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে যায় টাইগাররা। এবার বিশ্বকাপ শুরুর ঠিক আগে আগেই সুখবর পেতে পারেন সৌম্য এবং শরিফুল।

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূল স্কোয়াডে সুযোগ পেতে পারেন এই দুইজনই। বাদ পড়তে পারেন নাজমুল হোসেন শান্ত এবং মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। আগামী ১৫ অক্টোবরের মধ্যে বিশ্বকাপ দলে চাইলেই অনুমতি ছাড়াই পরিবর্তন সম্ভব। ফলে আগামী দুই দিনের মধ্যেই ঘোষণা আসতে পারে।

ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের পর্ব শেষে বদলের তেমনই আভাস দিলেন টাইগারদের টি-টোয়েন্টির টেকনিক্যাল কনসালটেন্ট শ্রীধরন শ্রীরাম। যদিও তিনি সরাসরি কে আসবেন বা কে আসবেন না সেই বিষয়ে কিছুই বলেননি। তবে আভাস দিয়েছেন, নিজেদের মধ্যে আলোচনা শেষে পরিবর্তনের ঘোষণা আসতে পারে দুই দিনের মধ্যেই।

আর ফর্ম, ইন্টেন্ট খেলার ধরণ এবং কন্ডিশন বিবেচনায় সৌম্য এবং শরিফুলই দলের সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। অপরদিকে বাজে পারফরম্যান্সের জন্য বাদ পড়তে পারেন শান্ত ও সাইফউদ্দিন।

বিশ্বকাপের দল ঘোষণার পর থেকে মোট চার ম্যাচ খেলে ৫ উইকেট নিয়েছেন শরিফুল। বল হাতেও নিজের সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়েছেন এই পেসার। অন্যদিকে ত্রিদেশীয় সিরিজে দুই ম্যাচে সুযোগ পেয়ে সৌম্যও নিজের ইন্টেন্টের প্রমাণ দিয়েছেন। দুই ম্যাচে স্বার্থহীন খেলেছেন বলে রায় দিয়েছেন খোদ শ্রীরামই। যদিও দুই ইনিংসে করতে পেরেছেন মোটে ২৭ রান।

সৌম্যকে নিয়ে শ্রীরাম বলেন, ‘সৌম্য দলের স্বার্থে খেলে। নিজের জন্য চিন্তা করে না।সে শট খেলে আউট হয়। এটাই তার অভিপ্রায়। আমি মনে করি সে দলের স্বার্থে খেলে, দলের প্রয়োজেনে খেলে। প্রথম ২ ওভারে আমরা ৬/৭ রান পেয়েছি।

দলের রান বাড়াতে গিয়ে সে আউট হয়ে গেছে। এটাই স্বাভাবিক। শেষ ম্যাচে তিন নম্বরে ব্যাটিং করে ভালো খেলেছিল। আমি মনে করি এটা ভালো লক্ষণ। তার মতো খেলোয়াড়রে মধ্যে আত্মবিশ্বাস তৈরি করতে হবে।’

এদিকে সুযোগ পেলেও ঠিক জমছে না শান্ত’র ব্যাট। ত্রিদেশীয় সিরিজে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এক ম্যাচে ৩৩ করেছেন। তবে খেলেছেন ২৯ বল। অন্য দুই ম্যাচে তো রানের চেয়েও বল খেলেছেন বেশি। বিশেষ করে ওপেনিংয়ে নামা শান্ত পাওয়ারপ্লেতে ভীষণ বিবর্ণ। পাকিস্তানের বিপক্ষে আজ তো প্রথম ৯ বলে করেছেন মোটে ১ রান।

সাইফউদ্দিন তো বল হাতে দেদারসে রান বিলিয়ে যাচ্ছেন। দুবাইতে আমিরাতের বিপক্ষে ৭ ওভারে হজম করেছেন ৬৬ রান। উইকেট পাননি একটিও। ত্রিদেশীয় সিরিজে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ২ উইকেট পেয়েছেন তবে দিয়েছেন ৩৭ রান। আর আজ পাকিস্তানের বিপক্ষে তো ৩.৫ ওভারে ৫৩ রান দিয়ে ম্যাচটাই হারিয়ে দিয়েছেন।

বিশ্বকাপের দল নিয়ে এদিন শ্রীরাম বলেন, ‘আমাদের হাতে দুই দিন সময় আছে। বিষয়টি নিয়ে আমরা অবশ্যই আলোচনা করবো। পরিবর্তন হতে পারে। আমরা জানি আমাদের কী চাই, এ ব্যাপারে আপনাদের কয়েকদিনের মধ্যে জানাতে পারবো।

Sharing is caring!