বিমানবন্দরের নিরাপত্তা নিয়ে মার্কিন-তুর্কি প্রতিরক্ষামন্ত্রীর ফোনালাপ!

আফ’গানি’স্তান থেকে বিদেশি সেনা প্র’ত্যাহার সম্পন্ন হওয়ার পর কাবুল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তা রক্ষা করার বিষয়ে টেলিফোনে তুর্কি প্রতিরক্ষামন্ত্রী হুলুসি আকারের সঙ্গে কথা বলেছেন মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন। তুরস্কের আ’নাদোলু এজেন্সি জানায়, টেলি’ফোনালাপে দুই প্রতিরক্ষামন্ত্রী কাবুলের ‘হামিদ কারজাই’ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরকে গোটা বিশ্বের সঙ্গে আফ’গানি’স্তানের যোগা’যোগের ‘একমাত্র জানালা’ বলে উল্লেখ করেন।

তারা বলেন, আফ’গানি’স্তানের শান্তি, নিরাপত্তা ও জনকল্যাণ নিশ্চিত করার জন্য এই বিমা’নবন্দ’রের পূর্ণ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। এদিকে, কাবুল বি’মানবন্দরের নিরাপত্তা রক্ষা করার লক্ষ্যে ওই বন্দরে তুর্কি সেনা মোতায়েন থাকবে জানান তুর্কি প্রেসিডেন্ট। কিন্তু তুর্কি প্রেসিডেন্টের সে বক্তব্যের বিরুদ্ধে কাবুল প্র’তিক্রি’য়া দেখিয়েছে।

আ’ফগা’ন প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র মোহাম্মাদ আমিরি বলেছেন, আফ’গান সরকার কাবুলসহ দেশের সব বিমানবন্দরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে একটি সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। কাজেই এর নিরাপত্তা রক্ষায় বিদেশি সেনা উপস্থিতির প্রয়োজন নেই।

আফ’গানি’স্তানে স’ন্ত্রা’সবা’দের বিরু’দ্ধে ল’ড়াই করা এবং দেশটির নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ঘোষণা দিয়ে ২০০১ সালের শেষদিকে দেশটি দখল করে নেয় আমেরিকা। কিন্তু গত ২০ বছরে ঘোষিত একটি লক্ষ্যও অর্জিত হয়নি বরং উল্টো আ’ফগানি’স্তানে নিরা’পত্তাহীনতা, স’ন্ত্রা’সবাদ ও মা’দ’কের কা’রবার বেড়ে গেছে।

শেষ পর্যন্ত আফ’গানি’স্তানে নিজের সা’ম’রিক উপস্থিতির ব্যর্থতা মেনে নিয়ে দেশটি থেকে সেনা প্রত্যাহার করে নিচ্ছে আ’মেরিকা।গতকাল বৃহস্পতিবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, আগামী ৩১ আগস্টের মধ্যে আফ’গানি’স্তান থেকে সব মার্কিন সেনা প্র’ত্যাহার করা হবে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*