বাকযু’দ্ধের ঘটনা নিয়ে আফ্রিদির টুইট; কড়া জবাব দিলেন আফগান পেসার!

লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগে খেলতে গিয়ে বিতর্কে জড়ালেন শহিদ আফ্রিদি। প্রতিপক্ষ এক খেলোয়াড়কে ‘তোমার জন্মের আগে থেকে আমি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সেঞ্চুরি করছি’ এমন বলেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। যা নিয়ে একরকম তোলপাড় চলছে। সোমবার আফগান বোলার নাভিন-উল-হককে মাঠের মধ্যেই এমন মন্তব্য করে বসেন বলে গুঞ্জন। ঘটনা সেখানেই থেমে নেই চলছে টুইটে অনলাইনেও তুমুল আলোচনা।

সেই মুহূর্তের ভিডিও পরে ভাইরাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে আফ্রিদি মঙ্গলবার টুইট করে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করেছেন। আফ্রিদির টুইটের জবাব দিয়েছেন নাভিন উল হকও।শাহিদ আফ্রিদির নেতৃত্বাধীন গল গ্ল্যাডিয়েটর্স মুখোমুখি হয়েছিল ক্যান্ডি টাস্কারর্সের। ম্যাচটা ২৫ রানে হেরে যায় আফ্রিদির দল। ম্যাচ শেষে দুই দলের খেলোয়াড়রা হাত মেলানোর সময় ক্যান্ডির তরুণ বোলার নাভিন-উল-হককে চোখ গরম করে কিছু একটা বলতে দেখা যায় আফ্রিদিকে।

তার খানিক আগেই অবশ্য অন্য খেলোয়াড়দের সঙ্গে হাসিখুশি ছিলেন আফ্রিদি। নাভিন সামনে আসতেই বদলে যান পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক।বিষয়টি নিয়ে পাকিস্তানি সাংবাদিক সাজ সাদিক টুইট করে লিখেন, আফ্রিদি ২১ বছর বয়সী নাভিনকে বলছেন, ‘বালক, তোমার জন্মের আগে থেকে আমি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সেঞ্চুরি করছি। ’

১৯৭ রান তাড়া করতে নেমে ম্যাচটায় ডাক মেরেছিলেন আফ্রিদি।নাভিনের সঙ্গে তার এই লেগে যাওয়া অবশ্য মোহাম্মদ আমিরের সঙ্গে ঘটে যাওয়া ঘটনায়। আফ্রিদির দলে খেলা আমির ব্যাট করার সময় বোলার নাভিনের সঙ্গে বেশ কবার কথা কাটাকাটিতে জড়িয়েছেন। তার জেরেই ম্যাচ শেষে আফ্রিদির ওই রেগে যাওয়া।

টুইট করে যা নিয়ে আফ্রিদি বলেছেন, ‘তরুণ খেলোয়াড়টির প্রতি আমার উপদেশ সহজ ছিল। খেলা খেল, আপত্তিকর কথা বলো না। আফগানিস্তান দলে আমার বন্ধু রয়েছে এবং আমাদের সম্পর্ক খুব আন্তরিক। সতীর্থ এবং প্রতিপক্ষের প্রতি শ্রদ্ধা হলো খেলাটির মূল চেতনা। ’আফ্রিদির টুইটের জবাবে আফগান এই তরুণও মুখে কুলুপ এঁটে নেই। আফ্রিদির সেই পোস্টেই জবাব দিয়েছেন নাভিন।

তাঁর অভিযোগ অবশ্য গুরুতর, ‘পরামর্শ নিতে ও সম্মান দিতে সব সময় প্রস্তুত আছি। ক্রিকেট ভদ্রলোকের খেলা। কিন্তু কেউ যদি বলে, তোমরা আমাদের পায়ের তলায় আছ এবং সেখানেই থাকবে, তাহলে সে শুধু আমাকে বলছে না; বরং আমার দেশের মানুষকে নিয়ে বলছে।’নাভিনের এই উত্তর এখন পর্যন্ত ৩০১ বার রিটুইট হয়েছে, লাইকসংখ্যা প্রায় ২ হাজার।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *