বাংলাদেশ সফরঃ এখনও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তটি নেয়নি অস্ট্রেলিয়া

নিয়মিত অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ ছিটকে গেছেন চোটের কারণে। বাংলাদেশ সফরে তাই সহ-অধিনায়ক থাকা ম্যাথু ওয়েডকেই দেখা যেতে পারে অস্ট্রেলিয়ার নেতৃত্বে। তবে এখনো আনুষ্ঠিকভাবে সে ঘোষণা দেয়নি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে অ্যালেক্স ক্যারির পারফরম্যান্স এবং অধিনায়কত্ব সিদ্ধান্তটা একটু হলেও ‘জটিল’ করে তুলেছে তাদের জন্য। এই দুজনের বাইরে মিচেল মার্শ ও মোইজেস হেনরিকেসও নেতৃত্বের আলোচনায় থাকবেন বলে জানা গেছে অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যমে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজে ওয়ানডে সিরিজের সহ-অধিনায়ক ছিলেন হেনরিকেস। আগে নানা সময়ই নেতৃত্বের প্রসঙ্গে আলোচনায় এসেছেন মার্শ।নির্বাচক ট্রেভর হন্স ও জর্জ বেইলির সঙ্গে কথা বলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত কয়েক দিনের মধ্যেই নেওয়া হবে বলে জানালেন ল্যাঙ্গার।

“আমরা এটি নিয়ে কাজ করব। এসব সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে ধারাবাহিক হতে চাই আমরা। আশা করি, উল্লেখযোগ্য একটা সময় ধরে দেখাতে পেরেছি যে দল ও নেতা নির্বাচন নিয়ে আমরা যথেষ্টই ধারাবাহিক এবং কোনো সংশয় নেই, বাংলাদেশে টি-টোয়েন্টির ক্ষেত্রেও সেই ধারাবাহিকতা দেখানো হবে।”

ক্যারিকে একসময় অস্ট্রেলিয়ার ভবিষ্যৎ কাণ্ডারি ভেবেই সীমিত ওভারের ক্রিকেটে যৌথভাবে সহ-অধিনায়ক করা হয়েছিল। পরে তাকে সরিয়ে দেওয়া হয় এই দায়িত্ব থেকে। এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজে নেতৃত্ব দিয়ে আবার তিনি নিজেকে তুলে এনেছেন সামনের কাতারে।

কোচ ল্যাঙ্গার মুগ্ধ মাঠে ভেতরে-বাইরে ক্যারির নেতৃত্বগুণে। “অ্যালেক্সের অধিনায়কত্ব ছিল দুর্দান্ত। সে খুবই ধীরস্থির এবং ব্যাটিংয়ের সময় তার মুখের দিকে তাকালেই সেটা চোখে পড়ে। ওর ক্যারিয়ার জুড়েই তা দেখেছি আমরা।”

“সে চূড়ান্ত পেশাদার, এজন্যই তার সঙ্গে কাজ করা সহজ। কারণ এটা জানা যে সে সবকিছুই ঠিকঠাক করবে। প্রতিপক্ষ নিয়ে খাটুনির সবটুকুর নিশ্চিত করে সে এবং তার জানা, আমাদের ক্রিকেটারদের কী অবস্থা। তার সঙ্গে কাজ করাটা তাই ছিল দারুণ।”

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*