ফিলিস্তিনিদের পানি কেড়ে নিচ্ছে ইসরাইল

ইসরাইলকে ফিলিস্তিনিদের পানির উৎস কেড়ে নেওয়া বন্ধ করতে বললেন ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস। আন্তর্জাতিক পানি দিবস উপলক্ষ্যে মঙ্গলবার দেওয়া এক ভাষণে তিনি ইসরাইলের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ আনেন।

তিনি ফিলিস্তিনি জনগণের জীবন নিয়ে এভাবে বর্বর আচরণ বন্ধে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ইসরাইলের ওপর চাপ প্রয়োগের আহ্বান জানান। মাহমুদ আব্বাস বলেন, বিশ্বনেতৃবৃন্দকে ফিলিস্তিনি জনগণের পানির উৎসগুলো ইসরাইলের দখল করে নেওয়ার বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে। দ্রুত এ বিষয়ে সমাধান চান ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রী।

আরও পড়ুন: মার্কিন কূটনীতিকদের বহিষ্কার করছে রাশিয়া মস্কোর মার্কিন দূতাবাস থেকে বেশ কয়েকজন কূটনীতিককে বহিষ্কারের প্রক্রিয়া শুরু করেছে রাশিয়া।যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তারা বুধবার কূটনীতিকদের একটি তালিকা পেয়েছে যাদের রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ‘পার্সোনা নন গ্রাটা’ বলে ঘোষণা করেছে।

এই আদেশের মধ্যে কতজন কূটনীতিক রয়েছে তা বলা হয়নি। বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সোমবার রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দেশটিতে মার্কিন রাষ্ট্রদূত জন সুলিভানকে তলব করে। ইউক্রেন আক্রমণের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে ‘যুদ্ধাপরাধী’ বলায় মস্কোর পক্ষ থেকে এর কড়া প্রতিবাদ জানানো হয়।

বৈঠকের পর রাশিয়া জানিয়েছে, তারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার কাছাকাছি, যা হবে একটি নজিরবিহীন পদক্ষেপ। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, এর আগে চলতি মাসের শুরুর দিকে জাতিসঙ্ঘে রাশিয়ান মিশনের ১২ সদস্যকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত জানিয়েছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

গুপ্তচরবৃত্তিতে জড়িত থাকার অভিযোগে তাদের ‘গোয়েন্দা অপারেটিভ’ হিসেবে অভিযুক্ত করে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ইউক্রেনে রাশিয়ান আগ্রাসনের পঞ্চম দিনে বাইডেন প্রশাসন এই পদক্ষেপ গ্রহণ করে। জাতিসঙ্ঘে মার্কিন মিশন এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘তাদের জাতীয় নিরাপত্তার পরিপন্থী গুপ্তচরবৃত্তিমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত হয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসের সুযোগের অপব্যবহার করেছেন রুশ কূটনীতিকরা।’

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*