ফাইনালের আগে নেইমারকে বার্তা পাঠালেন মেসি

ফাইনালে উঠেই নেইমার জানিয়ে দিয়েছিলেন, প্রতিপক্ষ হিসেবে তিনি চান আর্জেন্টিনাকেই। মেসির বিরুদ্ধে খেলার আকাঙ্খা থেকে কলম্বিয়ার বিপক্ষে সেমিফাইনালে আর্জেন্টিনাকেই সমর্থন জানিয়েছিলেন নেইমার। কিন্তু ফাইনালে যখন আর্জেন্টিনা উঠেই গেলো, তখন তো আর সমর্থন চলে না।

মাঠের বাইরে যতই বন্ধুত্ব থাকুক, মাঠে ঠিকই শত্রুতে পরিণত হবেন তারা দু’জন।কলম্বিয়ার বিপক্ষে পেনাল্টি শ্যুট-আউটে ফাইনাল নিশ্চিত হওয়ার পর প্রতিপক্ষের সেরা তারকা নেইমারের উদ্দেশ্যে বার্তা পাঠিয়ে দিলেন মেসি। নিজ দল নিয়ে কথা-বার্তা বলে বার্তাটা মেসি দিলেন নেইমারদেরই।

নিজ সতীর্থদের সতর্ক করে মেসি জানিয়ে দিয়েছেন, ফাইনালে ব্রাজিলকে হারানো হবে সবচেয়ে কঠিন। তবে তিনি আত্মবিশ্বাসী, ১৯৯৩ সালের পর এই প্রথম কোপা আমেরিকার শিরোপা জয়ের ব্যাপারে।মেসি বলেন, ‘নেইমারকে নিয়ে ব্রাজিল সত্যিই কঠিন এক প্রতিপক্ষ। আমরা তাদের সম্ভাবনা এবং শক্তির জায়গাগুলো জানি।

বিশেষ করে নেইমার ব্যক্তিগতভাবে কী করতে পারে, সে ব্যাপারেও আমাদের জানা আছে।নিজ দেশের হয়ে খেলা এবং শিরোপা জেতা মেসির কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এ কারণে তিনি বলেন, ‘জাতীয় দলের হয়ে আমি সব সময়ই চাই জিততে। আমি সব সময়ই চাই নিজের সেরাটা ঢেলে দিতে। নিজের সর্বস্ব দিয়ে লড়াই করতে এবং সব সময়ই লড়াই করি শিরোপা জেতার জন্য।’

তবে জয়-পরাজয় যাই হোক, ইতিবাচক থাকার চেষ্টা করবেন মেসি। সেটাই জানিয়ে দিলেন। তিনি বলেন, ‘আমরা হারি কিংবা জিতি, আমরা কোপা আমেরিকায় দারুণভাবে এগিয়েছি। এবার আবারও একই অবস্থায় এসে পৌঁছেছি। শুধু তাই নয়, এবার যে দলটি রয়েছে, তারা শিরোপা জেতার দাবি রাখে।’

অ্যাস্টন ভিলার গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্টিনেজই এখন মেসিদের পথ দেখাচ্ছেন। সেমিফাইনালে তিনটি পেনাল্টি শট ঠেকিয়ে দিয়েছেন তিনি। মেসি তার উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করলেন। তিনি বলেন, ‘আমরা জানতাম, এটা (টাইব্রেকার) ছিল খুবই কঠিন।

আমরা সেই কঠিন কাজটির সামনেই পড়ে গিয়েছিলাম। পেনাল্টি হচ্ছে লটারির মত। তবে আমরা ছিলাম, অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসী। গোলপোর্সে আমাদের আছে একজন ফেনোমেনন (মার্টিনেজ)। আমি জানতাম, সে অন্তত দুটি শট হলেও ঠেকিয়ে দিতে পারবে এবং সে হতাশ করেনি।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*