প্রকাশ্যে মা’দক বেচাকেনার ভিডিও ভাইরাল !

কুমিল্লায় প্রকা’শ্যে মা’দ’ক বেচাকেনার ধূম চলছে। এ নিয়ে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ফেসবুক ভিডিওতে দেখা যায়, ব্রাহ্মণপাড়া থানার সীমান্ত’বর্তী তেতাভূমি গ্রামে মা’দ’কস’ম্রাজ্ঞী পিংকি ও তার মা ম’দের বোতল খদ্দেরের হাতে তুলে দিচ্ছেন।

এ নিয়ে স্থানীয়রা প্রশ্ন তুলেছেন- দীর্ঘদিন ধরে এভাবেই প্রকাশ্যে স্পট খুলে রমরমা মা’দ’কের বাণিজ্য করছে কোন খুঁটির জোরে? এলাকাবাসী জানান, পুলিশকে ম্যানেজ করে এ মা’দ’কের ব্যবসা চলছে দীর্ঘ দিন ধরে।

ব্রাহ্মণপাড়া থানার ওসি বলেন, প্রথমে দেখছি এটি আমার এলাকা না বুড়িচং? পিংকি ও তার মাকে ধরতে পুলিশ কাজ করছে। মা’দকের বিষয়ে আমি জিরো টলারেন্সে আছি।

আরো পড়ুন: জরুরিভিত্তিতে পাঠক চেয়ে বিজ্ঞপ্তি ভোলার লালমোহনে ব্যতিক্রমী এক বিজ্ঞাপন সাড়া জাগিয়েছে। ‘জরুরিভিত্তিতে পাঠক প্রয়োজন’ এ শিরোনামে বিজ্ঞাপনটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করেছেন কয়েকজন তরুণ শিক্ষার্থী।

পাঠকের অভাবে লালমোহনের একমাত্র সরকারি পাবলিক লাইব্রেরিটি ধুঁকে ধুঁকে মরছে। বইগুলো সব ধুলোর আস্তরণে ঢেকে গেছে। লাইব্রেরির অভ্যন্তরে ময়লা আবর্জনার স্তূপ। এসব কিছু নজরে আসে তরুণ শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘রবিকর ফাউন্ডেশনের’।

তাদের উদ্যোগে লাইব্রেরিটি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে। বইগুলো যত্ন করে সেখানে একটা বই পড়ার পরিবেশ করেছে তারা। নিয়ে গেছে লালমোহন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল-নোমানকে। কিন্তু সব কিছু ঠিক করলেও সেখানে কোনো পাঠক বই পড়তে যায় না। তাই শিক্ষার্থীরা পাবলিক লাইব্রেরিতে ‘জরুরিভিত্তিতে পাঠক প্রয়োজনের’ বিজ্ঞাপন দিয়েছে।

লালমোহন থানা মোড়ের ঠিক পূর্বপাশে স্থাপিত দ্বিতল ভবনে পাবলিক লাইব্রেরি। প্রায় তিন দশক বয়ঃপ্রাপ্ত ভবনটি যেন বয়সের ভারে নুয়ে পড়েছে। লাইব্রেরিতে বইয়ের সংগ্রহ বেশ পুরনো হলেও মানের চিরায়ত সাহিত্যের বই সেগুলো।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*