পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসা গ্রহাণুকে ঠেকাতে রকেট ছুঁড়বে চীন!

পৃথিবীর দিকে ধে’য়ে আসা গ্রহাণুর পথ প’রিবর্তনের জন্য মহাকাশে র’কে’ট ছোঁ’ড়ার প্রস্তাব দিয়েছে চীন। একশ’ দুই তলা ভবনের সমান গ্রহাণুটি আগামী দেড়শ’ বছরের মধ্যে পৃথিবীতে আ’ঘা’ত হা’নতে পারে। তবে তার আগেই ২৩টি ‘লং মার্চ-৫’ র’কে’ট নি’ক্ষে’প করে পৃথিবীকে বাঁচাতে চান চীনের গবেষকরা।

পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আ’সা ৭ হাজার ৮শ’ কে’জি ওজনের গ্রহাণু বা পাথর ‘বে’নু’ নিউ ইয়র্কের আকাশচুম্বী ১০২ তলা এম্পায়ার স্ট্যাট বিল্ডিংয়ের সমান উঁচু। গ্রহাণুটি পৃথিবীতে আ’ঘা’ত ক’রলে ব্যাপক ধ্বং’সয’জ্ঞ সৃষ্টি হওয়ার আশ’ঙ্কা করা হচ্ছে। তবে পৃথিবীর ওপর ‘বেনু’র আ’ছড়ে পড়ার আশঙ্কা ২ হাজার ৭০০ ভাগের মধ্যে এক ভাগ মাত্র। তবে সেই এক ভাগ আ’শঙ্কাও যদি বাস্তব হয় পৃথিবীর ধ্বং’স অনিবার্য।

যদিও পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসা গ্রহাণুর গতিপথ প’রিবর্তন করতে এরইমধ্যে হিসেব নি’কেশ কষা শুরু করেছেন বিজ্ঞানীরা। চীনা বিজ্ঞানীরা বলছেন, তাদের ‘লং মার্চ-৫’ রকেট দিয়ে বেনুর গতিপথ পরিবর্তন করা সম্ভব। মহাকাশ বিষয়ক বিজ্ঞান সাময়িকী ‘ইকা’রাসে’ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে ২৩টি লং মার্চ ফাইভ র’কে’ট ছোঁ’ড়া’র প্রস্তাব দিয়েছেন গবেষকরা।

শুধু চীন নয়, চূড়ান্ত পর্যায়ে বেনু পৃথিবীর কাছাকাকাছি আসার সময় হলে এর গতিপথ পরিবর্তনে বিভিন্ন সমাধানের পথ খুঁজছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। প্রজেক্ট হ্যামারের মাধ্যমে ৪০০ টন ওজনের র’কে’ট জাতীয় বস্তু পাঠানোর চিন্তা ভাবনা করছে তারা। আর এটি চীনের রকেটের চেয়েও দ্রু’ত পৌঁছাতে সক্ষম বলে দাবি তাদের।

তবে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে এখনো ২৫ বছরের বেশি সময় লাগবে। আবার গ্রহাণুটিকে ধ্বং’স করতে পা’রমাণবি’ক অ’স্ত্র ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন অনেক বিজ্ঞানী, যদিও এতে অনেক ঝুঁ’কি রয়ে যায়। কেননা টুকরো টুকরো হয়ে যাওয়া বস্তুও পৃথিবীতে আ’ঘা’ত হা’নলে ব্যাপক ক্ষ’তির আশ’ঙ্কা থেকে যায়।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*