দাঁত দিয়ে নখ কাটেন? তাহলে আজ থেকে সাবধান !

দাঁত দিয়ে নখ কাটার অভ্যাস আমাদের অনেকেরই আছে। উত্তেজনার পারদ যখনই মাত্রা ছাড়ায়, তখনই হাত নিজে থেকেই যেন উঠে আসে মুখের কাছে। ঠিক যেমন ভাবে কোনও রুদ্ধশ্বাস ক্রিকেট ম্যাচে টিভির পর্দায় সচিন, সৌরভ, হরভজন বা যুবরাজকে দেখা গিয়েছে একাধিকবার। দাঁত দিয়ে নখ কাটার এই আপাত নিরীহ অভ্যাসটি কোনও ব্যক্তি সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে সাহায্য করে। আসুন এ বিষয়ে জ্যোতিষশাস্ত্র কী ব্যাখ্যা করছে তা জেনে নেওয়া যাক…

কোনও ব্যক্তি অতিরিক্ত মানসিক চাপের মধ্যে থাকলে তাঁর অবচেতনেই তৈরি হয় দাঁত দিয়ে নখ কাটার অভ্যাস। এই অভ্যাস ওই ব্যক্তির মানসিক চাপ ও তার নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতাকে নির্দেশ করে।

জ্যোতিষশাস্ত্র মতে, সৃষ্টিশীল মানুষদের ক্ষেত্রে তাঁর অবচেতন মন বা কল্পনাশক্তি অধিক প্রাধান্য পায়। তাই সৃষ্টিশীল জাতক বা জাতিকাদের মধ্যেই দাঁত দিয়ে নখ কাটার প্রবণতা বেশি লক্ষ্য করা যায়।
যে সকল জাতক বা জাতিকারা খুঁতখুঁতে স্বভাবের হয়ে থাকেন তাঁদের মধ্যেও দাঁত দিয়ে নখ কাটার প্রবণতা বেশি লক্ষ্য করা যায়। এই সমস্ত জাতক বা জাতিকারা কাজের মধ্যে কোনও খুঁত বা অসম্পূর্ণ কাজ একেবারেই পছন্দ করেন না।
যে সকল জাতক বা জাতিকাদের মধ্যে ধৈর্যের অভাব রয়েছে, যাঁরা খুবই অস্তির মতি, যাঁরা যে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রেই দ্বিধাগ্রস্থ হয়ে পড়েন তাঁদের মধ্যেও দাঁত দিয়ে নখ কাটার প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়। অনেক সময় কাজে একঘেয়েমি বোধ করার ফলেও দাঁত দিয়ে নখ কাটার অভ্যাস তৈরি হয়।

উল্লেখিত জ্যোতিষশাস্ত্রের ব্যাখ্যাগুলি অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মনোবিজ্ঞানীদের ব্যাখ্যার সঙ্গে মিলে যায়।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *