ডি ভিলিয়ার্স-ম্যাককালামের রেকর্ডও ছাড়িয়ে গেছেন তামিম

বাংলাদেশের ক্রিকেটে নিঃসন্দেহে দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। চলমান বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ড্যাশিং এই ওপেনারের ঝুলিতে যুক্ত হয়েছে আরও একটি রেকর্ড। যেখানে তিনি ছাড়িয়ে গেছেন বিশ্ব ক্রিকেটের টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের রথী মহারথী অনেক তারকা ব্যাটারকে।


শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) বিপিএলের নবম আসরের ম্যাচে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে খুলনা টাইগার্সের হয়ে খেলতে নেমেছিলেন তামিম ইকবাল। ম্যাচে রান তাড়া করতে নেমে ব্যাট হাতে ৪৪ রানের একটি ইনিংস খেলেছেন তিনি। ফলে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের ৭ হাজারি এলিট ক্লাবে ঢুকে পড়েন বাঁহাতি এই ব্যাটার।

স্বীকৃত টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ৭ হাজার রানের ক্লাবে পা রাখতে তামিম ২৪৩ ম্যাচের ২৪২ ইনিংসে ব্যাট হাতে মাঠে নামেন। যেখানে এমন কীর্তি নেই এবি ডি ভিলিয়ার্স, ব্রেন্ডন ম্যাককালাম, ফাফ ডু প্লেসি, ডেভিড মালান, রোহিত শর্মা, জেসন রয় ও শোয়েব মালিকের।



এই ফরম্যাটে ভীষণ সফল ব্যাটার এবি ডি ভিলিয়ার্স (২৬৩ ম্যাচে ২৪৫ ইনিংস), ব্রেন্ডন ম্যাককালাম (২৫৩ ম্যাচে ২৪৯ ইনিংস), ফাফ ডু প্লেসি (২৭৪ ম্যাচে ২৫৭ ইনিংস), ডেভিড মালান (২৬৩ ম্যাচে ২৫৭ ইনিংস), রোহিত শর্মা ( ২৭০ ম্যাচে ২৫৮ ইনিংস), জেসন রয় (২৬৮ ম্যাচে ২৬২ ইনিংস) ও শোয়েব মালিক (২৭৫ ম্যাচে ২৫৯ ইনিংস) ৭ হাজার রান করতে তামিমের চেয়েও বেশি ম্যাচ ও ইনিংস খেলেছেন।



টি-টোয়েন্টিতে রান সংগ্রাহকের তালিকায় তামিমের ঠিক ওপরে থাকা দক্ষিণ আফ্রিকার রাইলি রুশোর ৭ হাজার রান করতে লেগেছে ২৭৬ ম্যাচ, ইনিংস ২৬৫টি। তবে নিউজিল্যান্ডের মার্টিন গাপটিল এই কৃতিত্ব অর্জন করতে তামিমের সঙ্গে ম্যাচ সংখ্যায় (২৪৩) সমান হলেও ৭টি ইনিংস কম (২৩৫ ইনিংস) খেলে ৭ হাজারি ক্লাবের সদস্য হয়েছেন।

Sharing is caring!