জেলেদের মাছ ধরার মাঝে বাঘের হা’ম’লা, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

মানুষ বাঘের স্বাভাবিক খাদ্য নয়। বাঘ মানুষের র’ক্তের স্বাদ পেলে ও মানুষ বা অন্যজীব দ্বারা আ’হ’ত হলে মানুষখে’কো হয়ে ওঠে। বেশির ভাগ বাঘের আ’ক্র’মণের শি’কা’র গ্রস্থ মানুষের কাছ থেকে জানা গিয়েছে যে বাঘের আ’ক্র’ম’ণের সময় তারা বাঘের সীমানা মধ্যে ছিল।

বিশ্বে একাধিক জায়গায় বাঘের আ’ক্র’ম’ণের খবর পাওয়া গেছে। মুলত বাংলা বাঘ বেশি ন’রখা’দ’ক হয়। বাঘ বা রয়েল বেঙ্গল টাইগার আমাদের জাতীয় পশু। এইবাঘদের চালচলন রাজকীয়দের মত হয় কিন্তু এই বাঘ গো’লাই মাঝে মাঝে অনেক হিং’স্র রুপে মানুষদের মাঝে আ’ক্র’ম’ণ করে। তেমনি সুন্দর বনের একদল জেলেদের উপর এক বাঘের ভ’য়ংকর’ আ’ক্র’মনের ভিডিওটি সুশাল মিডিয়ায় ব্যাপক ভাইরাল।

আরও পড়ুন: আসল ও নকল দুধ চেনার সহজ উপায়! আজকাল সবকিছুতেই ভেজালের পরিমাণ এতোটাই বেড়েছে যে, কোনো পণ্যদ্রব্যেই ভরসা করা দায়। শুধু মাত্র ব্যবসায় লাভের আশায় বর্তমানে প্যাকেটজাত করা দুধেও ভেজাল মিশানো হচ্ছে।

তবে এই দুধ আসল না নকল তা চেনা কষ্টকর। তাই এইসব দুধ খাওয়ার আগে খুবই সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। তবে ঘরোয়া কিছু কৌশলের মাধ্যমে খুব সহজেই আসল ও নকল দুধের তফাৎ বোঝা যায়। চলুন

তবে জেনে নেয়া যাক সেই কৌশলগুলো- দুধ শুঁকে দেখুন ভাল করে শুঁকে দেখুন। যদি দুধ থেকে সাবানের ফেনার গন্ধ বেরোয়, তাহলে সাবধান! আপনার কেনা দুধ নকল হতে পারে।

দুধ জিভে লাগান প্যাকেট থেকে কাঁচা দুধ হাতের তালুতে সামান্য ঢেলে জিভে লাগান। যদি সামান্য মিষ্টি স্বাদ পান, তাহলে বুঝবেন আপনার কেনা দুধ নকল নয়।

দুধ ফোটান খাঁটি দুধকে ফোটালে কখনই তার রং বদলায় না। কিন্তু নকল দুধের রং ফোটালে হালকা হলুদ হয়ে যায়।কাঁচের পাত্রে দুধ নিয়ে ঝাঁকান অনেক সময় দুধের মধ্যে ওয়াশিং পাউডার মিশিয়ে দেয়া হয়। একটা কাঁচের পাত্রে দুধ নিয়ে ভাল করে ঝাঁকান। যদি বেশি ফেনা হয় এবং সেই ফেনা বহুক্ষণ স্থায়ী হয়, তখন বুঝতে হবে ওই দুধে ওয়াশিং পাউডার মেশানো আছে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*