জঙ্গিদের শক্ত ঘাঁটি এই জেলায়!

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার ও বন্দরে পৃথক জ’ঙ্গি অ’ভিযানের পর আবারো শ’ঙ্কিত এই জনপদের মানুষ। কারণ, প্রায় ২ বছর পর দেশে জঙ্গি অভিযান পরিচালিত হয়েছে এবং সেটি নারায়ণগঞ্জে। রোববার সন্ধ্যা থেকে সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টা পর্যন্ত চলমান এই অ’ভিযানে উ’দ্ধার করা হয়েছে বোমা তৈরির সরঞ্জাম, নিষ্ক্রিয় করা হয়েছে ৩টি শক্তিশালী বো’মা।

এর আগে ঢাকায় গ্রে’ফতার নব্য জেএমবির ৩ জ’ঙ্গির মধ্যে ২ জনকেই বো’মা তৈরিতে বিশেষ পারদ’র্শী বলেও স্বীকার করেছেন খোদ কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) শীর্ষ কর্মকর্তা। এমনকি অভিযান পরিচালনাকালে জ’ঙ্গি’রা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে হুম’কি দিয়ে পোস্ট করেছে বলেও রোববার রাতে গণমাধ্যমে জানিয়েছিলেন সিটিটিসির ডিআইজি আসাদুজ্জামান। তিনি সে সময় সকলকে সতর্ক থাকারও পরামর্শ দেন।

এদিকে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার সাতগ্রাম ইউনিয়নের নোয়াগাঁও এলাকায় এবং বন্দর উপজেলার ধামগড় ইউনিয়নের কাজীপাড়া এলাকার যে বাড়িতে পৃথক অ’ভিযান চালানো হয়েছিল, সেই বাড়ি ২টি সোমবার সকাল থেকে ঘিরে রেখেছেন আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। গ্রে’ফতার’কৃত নব্য জেএমবির সদস্য আব্দুল্লাহ আল মামুন বসবাস করতেন আ’ড়াইহা’জারের সেই গ্রামে।

এছাড়া নব্য জেএমবির বোমা প্রশিক্ষক নাইম ওরফে মেজর ওসামা বসবাস করতেন বন্দরের কাজীপাড়া এলাকায়। ভারতের বর্ধমান বি’স্ফোর’ণের অন্যতম ‘খল’নায়ক’ ও ১০ লাখ রুপি পুরস্কার ঘোষিত জ’ঙ্গি সাজীদ, ২০১৪ সালে গ্রে’ফতার হওয়া হরকত উল জিহাদের (হুজি) অ’পারেশন লিডার ইব্রাহীম বশরের বাড়িও বন্দর উপজেলায়।

এছাড়াও ২০১৪ সালের শেষ দিকে ফতুল্লার ব’ক্তা’বলী এলাকার একটি মাদ্রাসা থেকে বো’মা তৈরির ল্যা’বরেটরিসহ আ’টক হয় ৩ জ’ঙ্গি। ২০১৭ সালের ২৭ আগ’স্ট নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়া এলাকায় নি’হ’ত হন নব্য জেএমবির শীর্ষ জ’ঙ্গি নেতা তামিম চৌধুরী ওরফে শায়খ আবু ইব্রাহিম আল-হানিফসহ ৩ জ’ঙ্গি।

মাথায় ২০ লাখ টাকার হুলিয়া নিয়ে রাজধানীর এত সন্নিকটে নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ায় এসে আ’স্তানা ‘গে’ড়েছিলেন’ শীর্ষ জ’ঙ্গি তামিম চৌধুরী। এ ছাড়াও গত ৩ বছর আগে ফতুল্লার তক্কার মাঠ এলাকায় ‘জ’ঙ্গি বাড়িতে’ বিশাল অ’ভিযান চালিয়ে বো’মা তৈরির ল্যাব পেয়েছিল আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*