চীন-তালেবানের বৈঠকের সমাপ্তি, আসলো যে সিদ্ধান্ত

আফগানিস্তানের সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবানের একটি প্রতিনিধি দল চীন সফরে গেছেন। বুধবার তালেবানের রাজনৈতিক অফিসের প্রধান মোল্লা বারদার আখন্দের নেতৃত্বে নয় সদস্যের এক প্রতিনিধি দল চীন সফর করেছেন। সেখানে তারা চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই-এর সঙ্গে বৈঠক করেন।

আলোচনায় তারা দু দেশের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক এবং আফগানিস্তানে নিরাপত্তার বিষয়ে আলোচনা করেন বলে রয়টার্স জানিয়েছে। চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জানিয়েছেন উত্তরাঞ্চলীয় শহর তিয়ানজিনে তালেবান প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই।

বৈঠকে তালেবান এবং চীন একে অপরকে কয়েকটি বিষয়ে নিশ্চয়তা দেয়। তালেবান মুখপাত্র মোহাম্মদ নায়িম এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, রাজনীতি, অর্থনীতি ও উভয় দেশের নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট ইস্যু এবং আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি ও শান্তি প্রক্রিয়া নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।

তালেবান মুখপাত্র মোহাম্মদ নায়িম এক টুইট বার্তায় বলেন, প্রতিনিধিরা চীনকে আশ্বস্ত করেছে যে, আফগানিস্তানের ভূমিকে বেইজিংয়ের বিরুদ্ধে ব্যবহৃত হতে দেওয়া হবে না।
আফগানিস্তানে চীন যদি বিনিয়োগ করতে চায় তালেবান তাদেরকে সব ধরণের নিরাপত্তা দেবে।

এছাড়া চীনও আশ্বস্ত করেছে যে আফগানদের সহায়তা অব্যাহত রাখবে বেইজিং। তবে চীন আফগানিস্তানের কোনও ইস্যুতে হস্তক্ষেপ করবে না কিন্তু সমস্যা সমাধান এবং দেশটিতে শান্তি স্থাপনে সহায়তা দেবে। দীর্ঘ ২০ বছর পর আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার করছে যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্ররা।

এর মধ্যে দেশের প্রায় অর্ধেকেরও বেশি জেলার দখল নিয়েছে তালেবান। সশ’স্ত্র গোষ্ঠীটির এ অগ্রযাত্রা রুখতে হিমশিম খাচ্ছে আফগান সরকার। ধারণা করা হচ্ছে, আফগানিস্তানে যখন স’হিংস’তা বাড়ছে সেই মুহূর্তে চীন সফরের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে স্বীকৃতি নিশ্চিতের চেষ্টা করছে তালেবান।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*