চীনকে টেক্কা দিতে ৬টি অত্যাধুনিক সাবমেরিন তৈরি করছে ভারত

বেশিক্ষণ পানির নিচে থাকতে পারবে, বাড়বে সামরিক ক্ষমতা। ‘কৌশলগত সহায়তা’ মডেলের আওতায় ভারতীয় নৌবাহিনীর জন্য ৪৩ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে এমনই ছয়টি অত্যাধুনিক সাবমেরিন তৈরির ছাড়পত্র দিল প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

নতুন ডুবোজাহাজে ‘এয়ার ইন্ডিপেনডেন্ট প্রপালশন’ ব্যবস্থা থাকবে। ফলে পানির নিচে নৌবাহিনীর ক্ষমতা আরও বৃদ্ধির পাশাপাশি চীনের ক্রমবর্ধমান ডুবোজাহাজের মোকাবিলা করতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ এর অন্যতম বড় কর্মসূচি হতে চলেছে এই ছয়টি ডুবোজাহাজ তৈরির কাজ, যা দ্রুত ভারতে নতুন প্রযুক্তির আনা এবং ভারতেই ডুবোজাহাজ তৈরির পথ প্রশস্ত করবে। কৌশলগত দিক থেকে এই কর্মসূচির ফলে ভারতের আমদানিনির্ভরতা কমে যাবে এবং আরও আত্মনির্ভর হয়ে উঠবে।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ৩০ বছর ধরে ডুবোজাহাজের সংখ্যা বাড়ানোর কর্মসূচির আওতায় সেই ডুবোজাহাজ কেনার ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। ১৯৯৯ সালে যে কর্মসূচিতে অনুমোদন দিয়েছিল সুরক্ষা বিষয়ক ক্যাবিনেট কমিটি। সেই কর্মসূচিতে অবশ্য ডুবোজাহাজ হাতে আসতে বেশ কিছুটা সময় লাগবে। মোটামুটি ১০ বছর পর প্রথম ডুবোজাহাজটি পাবে ভারতীয় নৌবাহিনী।

মন্ত্রণালয়ের দাবি, ছয়টি ডুবোজাহাজ তৈরির প্রস্তাবে যে সবুজ সংকেত দেওয়া হয়েছে, তা ঐতিহাসিক। কারণ এই প্রথম ‘কৌশলগত সহায়তা’ মডেলে কোনো প্রকল্প ছাড়পত্র পেয়েছে।

সেই মডেলে দেশের মধ্যে ভারতীয় সংস্থাগুলোর উৎপাদনের জোর দেওয়া হয়েছে। যেই সংস্থা দেশেই উৎপাদনের পরিকাঠামো তৈরির জন্য বিদেশি প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম নির্মাণকারী সংস্থার সঙ্গে জোটবদ্ধ হবে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*