চতুর্থ বিয়ে করতে যাচ্ছেন ব্রাজিলের কিংবদন্তি রোনালদো

ব্রাজিলের হয়ে দুবার বিশ্বকাপজয়ী ফুটবল কিংবদন্তি রোনালদো নাজারিও। অনেকের কাছে তিনি ‘ফেনোমেনন’ নামেও পরিচিত। ক্লাব ফুটবলে এক সময় ইন্টার মিলান ও রিয়াল মাদ্রিদ মাতানো সেলেসাও এই স্ট্রাইকার চতুর্থবারের মতো বিয়ে করতে যাচ্ছেন। দেশটির মডেল সেলিনা লকসের সঙ্গে আট বছর প্রেমের পর জীবনের জুটি বাঁধতে যাচ্ছেন ৪৬ বছর বয়সী এই ফুটবল তারকা।



ব্রাজিলের সংবাদমাধ্যম ‘ল্যান্স’ জানিয়েছে, ২০১৫ সালে সেলিনার সঙ্গে পরিচয় রোনালদোর। এরপর স্পেনে রোনালদোর বাসায় যাতায়াত শুরু করেন সেলিনা। এরপর তারা দুজনে দীর্ঘ ৮ বছর চুটিয়ে প্রেম করেন। এরপর সেলিনাকে নিজেই বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছেন ব্রাজিলকে সর্বশেষ বিশ্বকাপ জেতানো সাবেক এই ফুটবলার।

রোনালদো যে বিয়ে করতে যাচ্ছেন, তার খবর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে জানিয়েছেন প্যারিস ফ্যাশন উইকের নিয়মিত মডেল সেলিনা লকস। তাদের দুজনের একটি ছবি পোস্ট করে সেলিনা ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘হ্যাঁ। আমি রাজি। তোমাকে চিরদিনের জন্য ভালোবাসি।’ রোনালদোও এই পোস্টে ভালোবাসার জবাবে ভালোবাসা ফিরিয়ে দিয়ে লিখেছেন, ‘তোমাকেও ভালোবাসি।’



ফ্যাশন জগতের তারকা সেলিনা ছোট বয়সেই মডেলিংয়ে যুক্ত হন। ৩২ বছর বয়সী এই মডেল ইন্ডাস্ট্রির খ্যাতিমান কয়েকটি সাময়িকীর প্রচ্ছদকন্যাও হয়েছেন। ‘ভোগ’, ‘বাজার’ ও ‘দিওর’-এর মতো বেশ কিছু নামীদামি ব্র্যান্ডের সঙ্গে কাজও করেছেন তিনি।

ব্যক্তিজীবনে চার সন্তানের জনক রোনালদো ১৯৯৭ সালে ব্রাজিলিয়ান মডেল সুজানা ওয়ের্নারের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান। তারা বিয়ে না করলেও মিলানে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত একসঙ্গে ছিলেন। তাদের বিচ্ছেদের পর রোনালদো মিলান ডমিনগুয়েজকে বিয়ে করেন রোনালদো। পরের বছর রোনাল্ডের জন্ম হলেও মাত্র চার বছর টিকেছিল তাদের সংসার।


এরপর ব্রাজিলিয়ান মডেল ও এমটিভি ভিজে ড্যানিয়েল সিকারেল্লিকে বিয়ে করেন রোনালদো। ২০০৫ সালে সেই জুটি মাত্র তিন মাস স্থায়ী হয়েছিল। এরপর মারিয়া বিয়েট্রিচকে বিয়ে করেন রোনালদো। এই ঘরে জন্ম হয় মারিয়া সোফিয়া ও মারিয়া এলিস নামে দুটি সন্তানের।

ব্রাজিলের বডিবিল্ডার মিশেল উমেজুর সঙ্গে ২০০২ সালে টোকিওতে পরিচয় হয়েছিল রোনালদোর। উমেজুর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে ২০০৫ সালে অ্যালেক্সের নামে এক সন্তানের বাবা হন রোনালদো। তবে আট বছর প্রেম করলেও সেলিনার সঙ্গে এখনো কোনো সন্তান নেননি।

Sharing is caring!