কোপার গোল্ডেন বল আর বুটের লড়াইয়ে মেসির সঙ্গে যারা

দেখতে দেখতে শেষ দিকে চলে এসেছে কোপা আমেরিকার লড়াই। টুর্নামেন্টে এখন টিকে আছে দুই দল। তৃতীয় স্থান নির্ধারণসহ ম্যাচ বাকি মাত্র দুটি। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার সমীকরণও অনেকটা পরিষ্কার। এমতাবস্থায় টুর্নামেন্টের গোল্ডেন বল ও গোল্ডেন বুট জেতার দৌড়ে এগিয়ে আছেন দুজন, লিওনেল মেসি ও নেইমার জুনিয়র।

কোপা আমেরিকার এবারের আসরে দারুণ খেলছেন মেসি। গোল করার পাশাপাশি করাচ্ছেনও। ৪ গোল নিয়ে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় সবার উপরে আছেন তিনি। কোপায় এর আগে কখনো গোল্ডেন বুট জেতেননি আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। মেসির ঠিক পেছনে আছেন তারই সতীর্থ লউতারো মার্টিনেজ, যার গোল ৩ টি।

মেসিকে টপকাতে হলে মার্টিনেজকে ফাইনালে দুটি গোল করতে হবে। একটি করলে হবে সমান সমান। এদিকে ফাইনালে আর্জেন্টিনার প্রতিপক্ষ ব্রাজিলের নেইমার ও লুকাস পাকুয়েতা দুটি করে গোল করেছেন। মেসির সমান্তরালে আসতে তাদের করতে হবে ডাবল স্কোর।

এছাড়া তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচের দুই দল পেরুর আন্দ্রে কারিল্লো ও গিয়ানলুকা লাপাদুলা এবং কলম্বিয়ার লুইজ দিয়াজের নামে পাশেও আছে দুটি করে গোল। মেসিকে টপকিয়ে কঠিন নেইমার, পাকুয়েতাসহ দুই গোল করা ৫ জনের গোল্ডেন বুট জেতা বেশ কঠিনই হবে।

তবে মেসির সতীর্থ লউতারো মার্টিনেজের জন্য ভালো সুযোগ থাকবে। কারণ ফাইনালে মেসি ব্রাজিলের জালে বল পাঠাতে মার্টিনেজকেই বেশি ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন। ইন্টার মিলানের এই স্ট্রাইকার এরই মধ্যে আর্জেন্টাইন সমর্থকদের ভরসাস্থলে ঢুকে গেছেন।

তাই গোল্ডেন বুটের লড়াইটা মেসির সঙ্গে হতে পারে তারই সতীর্থ মার্টিনেজের সঙ্গে। এদিকে শুধু গোল্ডেন বুটই নয়, মেসি জিততে পারেন গোল্ডেন বলটাও। কারণ সর্বোচ্চ গোলের পাশাপাশি সর্বোচ্চ অ্যাসিস্টও তার দখলে। এখন পর্যন্ত ৫ টি অ্যাসিস্ট করেছেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক, যা কোপার ইতিহাসে এক টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ।

টুর্নামেন্টে আর্জেন্টিনা এখন পর্যন্ত গোল করেছে ১১ টি। যেখানে ৫ টি অ্যাসিস্ট ও ৪ গোল করেছেন মেসি। অর্থাৎ ৯ টি গোলেই সরাসরি লিওর অবদান আছে। এতো অ্যাসিস্ট আর গোল কোন ফুটবলারের নেই। অ্যাসিস্টের দিক থেকে মেসির ধারে কাছে কেউ নেই। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ অ্যাসিস্ট নেইমারের। তিনি করেছেন দুটি অ্যাসিস্ট। ফলে গোল্ডেন বল জেতার দৌড়েও মেসিই এগিয়ে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*