কাতারে বিশ্বকাপ আয়োজন হাস্যকর

আসন্ন কাতারে বিশ্বকাপ আয়োজনের সিদ্ধান্ত একেবারেই হাস্যকর বলে মন্তব্য করেছেন নেদারল্যান্ডসের কোচ লুইস ফন গাল। শুধু আর্থিক ও বাণিজ্যিক দিক বিবেচনা করে মধ্যপ্রাচ্যে বিশ্বকাপের মতো একটি টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে যাচ্ছে বলে মনে করেন তিনি।

এদিকে ইউরো স্পোর্টসকে লুইস ফন গাল বলেন, কাতারকে বিশ্বকাপ আয়োজনের স্বত্ত্ব দেওয়ার বিষয়টি জালিয়াতি করা হয়েছে। আগামী বছর ২১ নভেম্বর থেকে ১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত কাতারে বসছে পরবর্তী ফুটবল বিশ্বকাপ। মধ্যপ্রাচ্যে গরমের বিষয়টি বিবেচনা করে ইউরোপের অনেক দেশ আপত্তি করায় নভেম্বর-ডিসেম্বরে টুর্নামেন্ট আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয় ফিফা। এ কারণে ঘরোয়া আসরগুলোর সূচি ঠিক করতে বিশ্বের বড় বড় লিগগুলোকে বেশ বেগ পেতে হচ্ছে।

কাতার বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবে ডেনমার্ক ও জার্মানির বিপক্ষে দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলবে নেদারল্যান্ডস। এক সংবাদ সম্মেলনে ফন গাল বলেন, ‘আমরা এমন কিছু দেশে ফুটবল খেলতে যাই যেখানে ফিফা জানিয়ে রাখে ফুটবলের উন্নতিতে সহযোগিতা করতে তারা এই দেশটিকে বেছে নিয়েছে। বিষয়টি মোটেও মানায়নি। কাতারে টুর্নামেন্টের পিছনে অর্থ ও বাণিজ্যের আগ্রহ ছাড়া আর কিছুই নেই। ফিফার কাছে এটিই গুরুত্বপূর্ণ।’

এর আগে গত বছর কাতার সফরের পর এক বিবৃবিতে ডাচ এফএ জানিয়েছিল, ‘বিশ্বকাপের মতো একটি বড় আসর কাতারে আয়োজনের ব্যপারে আমরা কখনই সমর্থন করেনি। শ্রমিকরা সেখানে যেভাবে মানবেতর জীবন-যাপন করছে তা কখনই সমর্থনযোগ্য নয়।’

এদিকে বৃটিশ দৈনিক গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়, কাতার বিশ্বকাপ আয়োজনের স্বত্ত্ব পাওয়ার পর থেকে অবকাঠোমো নির্মাণে তারা শ্রমিকদের সঙ্গে কি ধরনের আচরণ করছে তা নিয়ে আন্তর্জাতিকভাবে পর্যালোচনা হয়েছে। গত বছর নেদাল্যান্ডস, জার্মানি ও নরওয়ের খেলোয়াড়রা বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের ম্যাচের আগে কাতারের মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছিল।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*