করোনা রোগীদের তথ্য গণমাধ্যমকে না দেওয়ার নির্দেশ

করোনার বর্তমান পরিস্থিতিতে সিভিল সার্জন ব্যতীত অন্য কোনও চিকিৎসক ও সংশ্লিষ্ট কেউ টিভি চ্যানেল কিংবা কোনো প্রকার প্রিন্ট মিডিয়ার নিকট রোগ ও রোগীদের সম্পর্কে কোনো ধরনের তথ্য আদান-প্রদান করতে পারবে না।

স্বাস্থ্য বিভাগের ঢাকা জেলার আওতাধীন চিকিৎসকসহ সংশ্লিষ্টরা কোন প্রকার তথ্য দিতে পারবেন না বলে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন সিভিল সার্জন আবু হোসেন মো. মঈনুল আহসান। বৃহস্পতিবার ঢাকার সিভিল সার্জনের সই করা নিষেধাজ্ঞা বিভিন্ন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়, ‘ঢাকা জেলার স্বাস্থ্য বিভাগের সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, বিরাজমান কোভিড-১৯ ম’হামা’রিকালীন পরিস্থিতিতে সিভিল সার্জন ব্যতীত অন্য কাউকে টিভি চ্যানেল কিংবা কোনো প্রকার প্রিন্ট মিডিয়ার নিকট স্বাস্থ্যসেবাবিষয়ক কর্মকাণ্ড

অথবা রোগ ও রোগীদের সম্পর্কে কোনও ধরনের তথ্য আদান-প্রদান বা মন্তব্য না দেয়ার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে। একই সঙ্গে প্রিন্ট মিডিয়ার ব্যক্তিবর্গকে রোগীর ছবি তোলা, ভিডিও করা অথবা সাক্ষাৎকার ধারণ করা থেকে বিরত থাকার নিমিত্তে নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা যাচ্ছে।

এহেন কর্মকাণ্ড রোগীর ব্যক্তিগত গোপনীয়তা ভঙ্গের শামিল। এতদসংক্রান্ত কোনও তথ্য-উপাত্ত নেয়ার প্রয়োজন হলে সরকারি সিভিল সার্জন ঢাকার সহিত যোগাযোগ করার অনুরোধ করা হলো।’ এ বিষয়ে জানতে চাইলে সিভিল সার্জন মঈনুল আহসান সংবাদ মাধ্যমকে বলেন,

ঢাকা সিভিল সার্জনের অধীনে পাঁচটি উপজেলায় পাঁচটি হাসপাতাল রয়েছে। এই হাসপাতালগুলোর জন্য এই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এটা রাজধানীর জন্য প্রযোজ্য নয়।এসব হাসপাতালে কোনো ধরনের সংবাদ, রোগীর ব্যক্তিগত ছবি ও স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্ট নিউজ করতে হলে সিভিল সার্জন থেকে তথ্য নিতে হবে।

রোগীর ব্যক্তিগত ছবি তোলা, রোগীর অক্সিজেন নেয়া, রোগী চিকিৎসা নিচ্ছে, বিছানায় শুয়ে কাতরাচ্ছে এধরনের ছবি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে জনমনে আতঙ্কের সৃষ্টি করে ও তথ্য বিভ্রান্ত হওয়ারও সম্ভাবনা থাকে বলে জানান সিভিল সার্জন। তিনি বলেন, আমরা চাচ্ছি গণমাধ্যম যেন সিভিল সার্জন থেকে সঠিক তথ্যটুকু পায়।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*