কঠোর লকডাউন শিথিলের সিদ্ধান্ত

চলমান কঠোর লকডাউন শিথিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ১৫ থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন শিথিল করে শিগগিরই প্রজ্ঞাপন জারি করবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।
কুরবারি ঈদের মানুষের চলাচল ও পশুরহাটে কেনাবেচার বিবেচনায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে গণপরিবহণ। খোলা থাকবে শপিংমল ও দোকানপাট।

আরো পড়ুন :কোরবানির হাট বসার তারিখ ঘোষনা! আগামী ১৭ জুলাই থেকে রাজধানীর ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে কোরবানির হাট শুরু। আর এই হাট চলবে ২১ জুলাই পর্যন্ত। এদিকে করোনা পরিস্থিতি বিবেচনা করে এবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) সারুলিয়ায় একটি স্থায়ী হাটসহ মোট ১১টি হাটের ইজারা দিয়েছে।

খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, এর মধ্যে হাজারীবাগের ইনস্টিটিউট অব লেদার টেকনোলজি কলেজ সংলগ্ন হাট, উত্তর শাহজাহানপুর খিলগাঁও রেলগেট সংলগ্ন হাট, আফতাবনগরের ব্লক ই/এফ/জি/এইচ-এর সেকশন ১ ও ২-এর হাটে এরই মধ্যে শুরু হয়েছে প্রস্তুতিমূলক কাজ।

অন্যদিকে গাবতলীর একটি স্থায়ী পশুর হাটসহ এখন পর্যন্ত মোট ১০টি হাটের ইজারার কাজ শেষ করেছে ঢাকা উত্তর। এর মধ্যে আফতাবনগরের বাড্ডা ইস্টার্ন হাউজিং সংলগ্ন হাট, কাওলা-শিয়ালডাঙ্গার হাট, ডুমনি পশুর হাট, ভাটারা-সাঈদনগর পশুর হাট এবং মোহাম্মদপুর-বছিলা পশুর হাটের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে।

বর্তমানে এসব হাটে চলছে বাঁশ-খুঁটি পোঁতার কাজ। অনেক হাটে প্রস্তুতির কাজও সেরে ফেলা হয়েছে। দূর থেকেই চোখে পড়ে এসব হাটের প্রধান ফটক। এদিকে কোরবানির এত আগে রাজধানীতে কিভাবে পশুর হাট বসল—এমন প্রশ্নে ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহাম্মদ বলেন,

‘বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। আমরা তাদের সতর্ক করেছি, লিখিত নির্দেশ দিয়েছি। না মানলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব। আমরা বুধবারের আগে কোনো হাট বসতে দেব না।’ এ ব্যাপারে ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম রেজা বলেন, ‘শর্ত ভাঙার সুযোগ নেই। আমাদের টিম কাজ করছে। কেউ শর্ত ভাঙলে আমরা তার ইজারা বাতিল করে দেব।’

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*