ওভালের আদলে মিরপুরের একাডেমি মাঠে বসছে ‘রিট্রাক্টেবল ছাদ’

কদিন আগে মিরপুর শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তিনদিনের প্রস্তুতি ক্যাম্পের আয়োজন করলেও বৃষ্টির কারণে তা শেষ করতে পারেনি বাংলাদেশ। প্রথমদিন খানিকটা অনুশীলন করলেও বাকি দুইদিন গেছে বৃষ্টির পেটে। যে কারণে নিজেদের প্রস্তুত করতে সংযুক্ত আরব আমিরাতে ক্যাম্প করার পাশাপাশি তাদের সঙ্গে ম্যাচ খেলার ব্যবস্থা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

বৃষ্টির মাঝেও ক্রিকেটারদের অনুশীলনের ব্যবস্থা করতে মিরপুরের একাডেমি মাঠে ‘রিট্রাক্টেবল ছাদ’ বসাতে যাচ্ছে দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা। গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপচারিতায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিবির গ্রাউন্ডস ও ফ্যাসিলিটিজ কমিটির ম্যানেজার আব্দুল বাতেন।

মাঠে ‘রিট্রাক্টেবল ছাদ’ এর ব্যবস্থা না থাকায় বৃষ্টির কারণে প্রায়শই ভেস্তে যায় ক্রিকেট ম্যাচ। কারণ বৃষ্টি হলে উইকেট না ভিজলেও আউটফিল্ড ভেজা ও সিক্ত হয়ে থাকে। যার ফলে ম্যাচ আয়োজনে বেগ পোহাতে হয়। ফুটবল বা অন্যান্য খেলায় ‘রিট্রাক্টেবল ছাদ’ যুক্ত মাঠ থাকলেও ক্রিকেটে এমন সংখ্যাটা খুবই কম।

মেলবোর্নের ডকল্যান্ডস স্টেডিয়ামে অবশ্য ‘রিট্রাক্টেবল ছাদ’ এর ব্যবস্থা রয়েছে। যেখানে আন্তর্জাতিক ম্যাচও অনুষ্ঠিত হয়েছে। যদিও বিসিবি ম্যাচ আয়োজনের জন্য এই ছাদের ব্যবস্থা করছে না। এদিকে নিউজিল্যান্ডের হ্যাগলি ওভালে অনুশীলনের জন্য ‘রিট্রাক্টেবল ছাদ’ রয়েছে। যার মাধ্যমে বৃষ্টি আসলে সুইচের মাধ্যমে লাগানো যাবে এবং প্রয়োজন হলে খুলেও ফেলা যাবে। নিউজিল্যান্ডের সহায়তায় কানাডার একটি কোম্পানির মাধ্যমে এটি বানাবে বিসিবি।

এ প্রসঙ্গে বাতেন বলেন, ‘বগুড়ার উইকেট আমরা নিউজিল্যান্ডের আদলে বানানোর চেষ্টা করেছি। মিরপুর একাডেমি ও ইনডোরও সারাবছর, বৃষ্টির সময়ও যেন অনুশীলন করতে পারে সেই ব্যবস্থা আমরা নিব, যেটা নিউজিল্যান্ডে আছে। ইতোমধ্যে চূড়ান্ত পর্যায়ে আছে।’

‘নিউজিল্যান্ডের ইনডোরে যে ছাদটা আছে, বৃষ্টির সময় থাকে অন্য সময় সরে যায় সেটা ইতোমধ্যে আমাদের পরিকল্পনার চূড়ান্ত পর্যায়ে আছে। খুব দ্রুতই আমাদের এখানে এটা ইনস্টল হবে, একোটা কানাডিয়ান কোম্পানি নিউজিল্যান্ডে করেছে, নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের সহায়তায় এটা আমরা বাংলাদেশে ব্যবস্থা করছি।

Sharing is caring!