ওদের হাতেই নিরাপদ আফগানিস্তানের মাটি ও স্বাধীনতা!

সম্প্রতি তুরস্কভিত্তিক গণমাধ্যম টিআরটি ওয়ার্ল্ডে আফগানিস্তানের সাম্প্রতিক ইস্যুতে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন তালেবানের মুখপাত্র সুহাইল শাহীন। এই সাক্ষাৎকারে তিনি দাবি করেছেন-তালেবান আফ’গানি’স্তানের প্রকৃত স্বাধীনতা সংগ্রামী। আফ’গানি’স্তানের মাটির সম্মান ও স্বাধীনতা একমাত্র তালেবানের হাতেই নিরাপদ।

তালেবানের মুখপাত্রের কাছে টিআরটি ওয়ার্ল্ডের সাংবাদিক আলী আসলান প্রশ্ন করেন, আফ’গানি’স্তানে আবার র’ক্ত নিয়ে হো’লি খেলা শুরু হয়েছে, তালেবান কেন এই র’ক্তপা’ত ঘটাচ্ছে, আফগানিস্তানের ভবিষ্যত কী? এই প্রশ্নের জবাবে তালেবানের মুখপাত্র সুহাইল শাহীন বলেন, গত পাঁচ থেকে ছয় সপ্তাহে দেড়শ জেলা আমাদের হাতে এসেছে। কোনো বাহিনীর পক্ষে ল’ড়াই করে দ্রুত এত বিশাল এলাকা দখল করা সম্ভব?

তালেবানের যু’দ্ধশক্তি কি এত বেশি? আসলে তা নয়। আমরা যে সব এলাকা দখল করছি সেখানকার সরকারি বাহিনী স্বেচ্ছায় আ’ত্মসমর্পণ করছে। তারা আমাদের দলে যোগ দিচ্ছে, কারণ তারা জানে-কাবুল প্রশাসন মূলত দখলদারদের উ’চ্ছিষ্ট’ভোগী। অন্যদিকে তালেবান আ’ফগা’নিস্তানের প্রকৃত স্বাধীনতা সংগ্রামী। আফ’গানি’স্তানের মাটির সম্মান ও স্বাধীনতা একমাত্র তালে’বানের হাতেই নিরাপদ।

আফগানিস্তানে প্রায় ২০ বছরের ল’ড়াই শেষে দেশে ফিরছে মার্কিন বাহিনী। এরমধ্যে তালেবান যো’দ্ধারা দু’র্নিবার গতিতে কাবুলের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর। জ’ঙ্গি সংগঠন আ’ল-কা’য়েদার সঙ্গে জ’ড়িত ১৯ জ’ঙ্গি চারটি উড়ো’জাহাজ ছিন’তাই করে আ’ত্ম’ঘা’তী হা’ম’লা করেন যুক্তরাষ্ট্রের তিনটি জায়গায়। দুটি উড়োজাহাজ আ’ঘা’ত হানে নি’উইয়র্কের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার বা টুইন টাওয়ারে।

এই হা’ম’লার জে’রে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ ২০০১ সালে আফগান যু’দ্ধ শুরু করে’ছিলেন। প্রায় দুই দশক ধরে চলা আ’ফগান যু’দ্ধের ইতি টান’ছে যুক্তরাষ্ট্র। আগামী ১১ সেপ্টেম্বরের আগে আফ’গানি’স্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্র সব সেনা প্রত্যাহার করবে। এ লক্ষ্যে প্রায় সব কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে জানা গেছে।

সম্প্রতি আফগানিস্তান নিয়ে যুক্ত’রাষ্ট্রের গোয়েন্দাদের একটি প্রতিবেদন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আগামী ১১ সেপ্টেম্বর কাবুল থেকে সকল বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের ৬ থেকে ১২ মাসের মধ্যে তালেবান যো’দ্ধা’রা রাজধানী শহর দখল করবে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, বিদেশি সেনাদের সমর্থন ছাড়া বর্তমান আফগান সরকারের টিকে থাকা অসম্ভব। কারণ সরকারের অনেক সেনা নিজেদের অবস্থান ছেড়ে তা’লেবানের সঙ্গে যুক্ত হচ্ছেন। এই সূত্রে তা’লেবান অনেক উন্নত অ’স্ত্র এবং ন্যা’টোর রেখে যাওয়া যানবাহন পাচ্ছে নির্বিঘ্নে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*