‘ইউক্রেনে যুদ্ধের জন্য ন্যাটো দায়ী’

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের ঘোষণার পর ইউক্রেনে টানা ২৩ দিন ধরে রুশ সেনাদের অভিযান চলছে। তবে এই যু’দ্ধের জন্য পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোকে দায়ী করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামফোসা। বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) পার্লামেন্টে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন। দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট বলেন, এই আগ্রাসনে সংকটের কারণগুলো বোঝা গুরুত্বপূর্ণ।

তবে এর অর্থ এই নয় যে রাশিয়ার আ’গ্রা’সনের সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকা একমত। আমরা আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘনকে প্রশ্রয় দিতে পারি না। রামফোসা বলেন, ইউক্রেন-রাশিয়ার যুদ্ধ বন্ধে চাইলে মধ্যস্থতা করতে পারে দক্ষিণ আফ্রিকা। পুতিন ব্যক্তিগতভাবে আমাকে আশ্বস্ত করেছেন আলোচনার অগ্রগতি হচ্ছে। এদিকে এর আগেও রাশিয়ার একাধিক মিত্র দেশ চলমান পরিস্থিতির জন্য ন্যাটো এবং পশ্চিমাদের দায়ী করেছেন।

উল্লেখ্য, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের সামরিক অভিযান ঘোষণার কয়েক মিনিট পরেই ইউক্রেনে বো’মা ও ক্ষে’পণা’স্ত্র হা’ম’লা শুরু করে রুশ সেনারা। এরপর থেকে ইউক্রেন ও রাশিয়ার মধ্যে যু’দ্ধ চলছে। ইতোমধ্যে ইউক্রেন ছেড়েছেন ৩১ লাখের বেশি মানুষ।

এ ছাড়া যু’দ্ধে ইউক্রেনের ১৩শ’ সেনা নি’হ’ত এবং রাশিয়ার ১৪ হাজার ২০০ সৈন্য নি’হ’ত হয়েছে বলে দাবি করেছে ইউক্রেন। তবে রাশিয়া বলছে, যু’দ্ধে তাদের প্রায় ৫০০ সৈন্য নিহত এবং ইউক্রেনের আড়াই হাজারের বেশি সেনা নি’হ’ত হয়েছেন।

এ ছাড়া জাতিসংঘ জানিয়েছে, রুশ অভিযানে ইউক্রেনে ৭২৬ বেসামরিক নাগরিক নি’হ’ত হয়েছেন। নি’হ’তদের মধ্যে ৫২ শিশু রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র বলছে, ইউক্রেনে আনুমানিক ৫ থেকে ৬ হাজার রুশ সেনা নি’হ’ত হয়েছে। সূত্র: আল জাজিরা

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*