ইংলিশদের চ্যালেঞ্জ দিয়েও জয় পেল না নিউজিল্যান্ড

বৃষ্টির পেটে চলে গিয়েছিল লর্ডস টেস্টের তৃতীয় দিনের পুরো খেলা। যে কারণে এ ম্যাচের ফলাফল নিয়ে আগেই জেগেছিল শঙ্কা, ম্যাড়ম্যাড়ে ড্র-ই ধরে রেখেছিলেন সবাই। তবে শেষ চেষ্টাটা করতে চেয়েছিল নিউজিল্যান্ড। কিন্তু তাদের চ্যালেঞ্জে সাড়া দেয়নি স্বাগতিক ইংল্যান্ড। ফলে ড্র-তেই শেষ হয়েছে ম্যাচ।

ম্যাচের শেষদিন ইংল্যান্ডের সামনে ৭৫ ওভারে ২৭৩ রানের লক্ষ্য ছুড়ে দিয়েছিল নিউজিল্যান্ড। ওভারপ্রতি প্রায় সাড়ে তিনের বেশি চাহিদার এই লক্ষ্য তাড়া করার চ্যালেঞ্জটা নেবে ইংল্যান্ড- এমনটাই আশা ছিল কিউইদের। কিন্তু স্বাগতিকদের ব্যাটিংয়ে দেখা গেছে, জয়ের ইচ্ছা নেই তাদের। ধীরে সুস্থে খেলে ড্র নিয়েই মাঠ ছেড়েছে তারা।

দ্বিতীয় ইনিংসে ১০৩ রানের লিড নিয়ে খেলতে নেমে চতুর্থ দিন শেষে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ ছিল ৩০ ওভারে ২ উইকেটে ৬২ রান। শেষদিন আরও ২২.৩ ওভার ব্যাটিং করে ১০৭ রান যোগ করে তারা, হারায় ৪টি উইকেট। সবমিলিয়ে ৬ উইকেটে ১৬৯ রানে ইনিংস ঘোষণা করলে ইংল্যান্ডের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ৭৫ ওভারে ২৭৩ রানের।

নিউজিল্যান্ডের পক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেন টম লাথাম। এছাড়া রস টেলরের ব্যাট থেকে আসে ৩৩ রান। অভিষেক ইনিংসেই ডাবল সেঞ্চুরিতে ইতিহাসগড়া ডেভন কনওয়ে এই ইনিংসে থামেন ২৩ রান করে, সমান ২৩ রানের ইনিংস খেলেন হেনরি নিকলসও। ইংল্যান্ডের অভিষিক্ত পেসার অলি রবিনসন নেন ৩টি উইকেট।

২৭৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই ধীর ব্যাটিং করতে থাকে ইংল্যান্ড। যে কারণে দিনের খেলা শেষ হওয়ার অল্প কিছু সময় বাকি থাকতে ড্র মেনে নেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেইন উইলিয়ামসন। তখন পর্যন্ত ৭০ ওভার খেলে ৩ উইকেটে ১৭০ রান করতে সক্ষম হয় স্বাগতিকরা।

এই ইনিংসে ইংল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ ৬০ রান করেন ওপেনার ডম সিবলি। এ রান করতে তিনি খেলেন ২০৭টি বল। এছাড়া জো রুট ৪০ ও প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরি ররি বার্নসের ব্যাট থেকে আসে ২৫ রান।

ম্যাচ জিততে পারলেও, ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছেন নিউজিল্যান্ডের অভিষিক্ত ওপেনার ডেভন কনওয়ে। আগামী ১০ জুন সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে লড়বে এ দুই দল।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*