আসছে ইয়াস, সাগরে তৈরি হচ্ছে ঘূর্ণিঝড়

পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি লঘুচাপটি আজকের মধ্যেই নিম্নচাপে রূপ নেবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া অফিস। পরে ধীরে ধীরে সেটি ঘূর্ণিঝড়ের রূপ ধারণ করবে।

আবহাওয়াবিদরা জানান, এই ঘূর্ণিঝড়ের গঠন অনেকটা গেলো বছরের আম্পানের মতো হলেও, শক্তির দিক থেকে কিছুটা দূর্বল। ঝড়ের মুখটি এখনো পশ্চিমবঙ্গের দিকে অবস্থান করছে। ভারতের উড়িষ্যা ও পশ্চিমবঙ্গে আগে আঘাত হানবে।

বঙ্গোপোসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপটি এখনো বাংলাদেশ থেকে প্রায় সাড়ে পাঁচশ’ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে যেটি রুপ নিচ্ছে নিম্নচাপে।

২৬ মে বিকাল কিংবা সন্ধ্যা নাগাদ আঘাত ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলে আঘাত হানতে পারে। তবে এটির গতিপথে নাটকীয় কোন পরিবর্তন না হলে ভারতের উড়িষ্যাতে আছড়ে পড়তে পারে। যার প্রভাব পড়তে পারে পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের উপকূলে।

আবহাওয়াবিদ বজলুল রশীদ জানান, ঘূর্ণিঝড়টির ধরন আম্পানের মতো হলেও খুব বেশি শক্তিশালী হবে না। ভারতে আঘাত হানার পর এটি বাংলাদেশের উপর দিয়ে প্রবাহিত হলে বাতাসের গতিবেগ সর্বোচ্চ ১০০ কিলোমিটার হতে পারে। তবে বড় ধরনের জলোচ্ছাস হবার সম্ভাবনা নেই। ভারি থেকে অতি ভারি বৃষ্টি হতে পারে।

তিনি আরো জানান, যেহেতু এখনও ঘূর্ণিঝড়টি সৃষ্টি হয়নি। ফলে এটির গতিপ্রকৃতি শতভাগ নিশ্চিত করে বলা সম্ভব হচ্ছে না। প্রতি মুহূর্তেই ঘূর্ণিঝড় তাদের রুপ পরিবর্তন করে। তবে সুপার সাইক্লোন হবার সম্ভাবনা নেই।

সাতক্ষীরা, খুলনা আর সুন্দরবন এলাকার উপর দিয়ে ঘূর্ণিঝড়টি প্রবাহিত হবে। সমুদ্র বন্দরে এক নম্বর সর্তক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। গভীর সমুদ্রে থাকা সব নৌযানকে তীরবর্তী এলাকায় অবস্থান করার নির্দেশনা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

ঘূর্ণিঝড়টি নিম্নচাপে রুপ নেয়ার পর সারাদেশে বৃষ্টিপাত হওয়ার পূর্বাভাস দিচ্ছে আবহাওয়া অফিস। বৃষ্টির পর তাপদাহ কমবে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*