আর্জেন্টিনার শক্তি কোথায়, জানালেন মেসি

প্রথমার্ধে দলকে এগিয়ে নিতে পারতেন আর্জেন্টিনার অধিনায়ক লিওনেল মেসি। কিন্তু পেনাল্টি মিস করেন তিনি। তাতে ছিটকে পড়ার বড় শঙ্কা ছিল তাদের। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে আরও ধারালো হয় আর্জেন্টিনা। সতীর্থরা এগিয়ে আসেন। গোলদুটি করেন সেই খেলোয়াড়রা, যাদের মূল একাদশে জায়গা নিশ্চিত নয়। প্রয়োজনে তরুণদের এভাবে এগিয়ে আসাটাই দলের অন্যতম প্রধান শক্তি বলে জানালেন মেসি।

বুধবার রাতে স্টেডিয়ামে ৯৭৪’য়ে পোল্যান্ডের বিপক্ষে আলেক্সিস ম্যাক আলিস্তার ও হুলিয়ান আলভারেজের গোলে ২-০ গোলের জয় পায় আর্জেন্টিনা। তাতে নকআউট পর্ব তো নিশ্চিত হয়েছেই, গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই জায়গা নিয়েছে দ্বিতীয় রাউন্ডে। অথচ গোলদাতা দুই তরুণ আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে শুরু করেছিলেন বেঞ্চ থেকে। আগের দিন প্রথম একাদশে সুযোগ পেয়েই জ্বলে ওঠেন।

আর প্রয়োজনের সময় দলের সবার এভাবে জ্বলে ওঠা অর্থাৎ নিজেদের মধ্যে এই একতাই আর্জেন্টিনার মূল শক্তি বলে মনে করেন মেসি, ‘আমরা শুরু থেকেই বলেছি, যে দলে আসবে সে তারা জানে তাকে কী করতে হবে এবং সর্বদা সম্পূর্ণ প্রস্তুত থাকে। এটাই এই দলের শক্তি, একতা। এবং এটাই একজনকে করতে হয়, যখন প্রয়োজন তখন তাকে সাড়া দিতে হয়।’

অথচ অপেক্ষাকৃত দুর্বল সৌদি আরবের বিপক্ষে শুরুতেই বড় ধাক্কা। সে ধাক্কা সামলে কী দারুণভাবেই না ঘুরে দাঁড়িয়েছে আর্জেন্টিনা। গ্রুপ সেরা হয়েই নকআউট পর্বে নাম লিখিয়েছে। সবচেয়ে বড় কথা পোল্যান্ডের বিপক্ষে দারুণ খেলেছে তারা। তাতে দলটি আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছে বলে জানান আর্জেন্টাইন অধিনায়ক, ‘আমরা আমাদের উপর বিশ্বাস ফিরে পেয়েছি। প্রথম ম্যাচ আমাদের অনেক ভুগিয়েছে। অনেক মূল্য দিতে হয়েছে। আশা করি আমরা এই ধারা বজায় রাখতে পারব।’

‘আমি আগেও বলেছি, আমরা যখন হার দিয়ে শুরু করেছি মানে আমাদের শুরুটা ছিল খুব বাজে। সবাই হতাশ এবং চিন্তিত ছিল। তবে এখন ঘুরে দাঁড়িয়েছি, এভাবেই চলতে থাকবে দলটি। আশা করি আমরা আজ যেভাবে খেলেছি সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারব,’ যোগ করেন মেসি।

তবে সামনের পথটা অনেক কঠিন দেখছেন অধিনায়ক। সব দলেরই সমান সুযোগ দেখছেন তিনি, ‘এটা স্পষ্ট যে কেউ যে কাউকে হারিয়ে দিতে পারে। আমরা নিজেদের প্রথম ম্যাচেই (সৌদি আরবের বিপক্ষে) এটা দেখেছি। এটা খুবই সমান একটি বিশ্বকাপ। কোনো দলই সহজ নয়। যে কোনো দলই কঠিন। তবে আমরা জানতাম যে আমরা নিজেদের উপর নির্ভরশীল।’

Sharing is caring!