আন্তর্জাতিক আদালতে সেই বিধ্বস্ত ভবনের মালিক!

ইস’রাই’লের বি’রুদ্ধে আন্ত’র্জাতিক আদালতে (আইসিসি) অ’ভিযোগ করেছেন গা’জার বি’ধ্ব’স্ত এক বহুতল ভবন মালিক। এএফপি, আলজাজিরাসহ ৩৩টি গণমাধ্যমের দপ্তরও ছিল ওই ভবনে। জালা টাওয়ার নামে বিখ্যাত ১৩ তলা ভবনটি ১৫ মে গু’ড়ি’য়ে দেয় ই’সরাই’ল।

ই’সরাই’লের এ উ’দ্দেশ্যপ্রণোদিত না’শক’তাকে আন্তর্জাতিক আইনের ‘যু’দ্ধা’প’রাধ’ ধা’রায় আ’ইসিসিতে মা’ম’লা করেছেন ভবন মালিক জাওয়াদ মেহদি। সংশ্লিষ্ট আইনজীবীর বরাত দিয়ে শনিবার এক প্রতিবেদনে এ খবর দিয়েছে এএফপি।অভিযোগকারী জাওয়াদ মেহদি বলেন, ‘১৫ মে ইস’রাই’লিদের হা’ম’লায় জা’লা টা’ওয়ারটি ধ্বং’স হ’য়েছিল, বিশ্বের প্রভাবশালী সব গণমাধ্যমের দপ্তরও ছিল। এটা রীতিমতো যু’দ্ধা’প’রাধ।’

অ’ভিযোগনামার একটি কপি এএফপির কাছে রয়েছে। আইসিসির প্রধান প্রসিকিউটর গত সপ্তাহে জানিয়েছিলেন ই’সরাই’ল ও ফি’লি’স্তিনের মধ্যকার সাম্প্রতিক এ যু’দ্ধে ‘অপ’রাধ’ সং’ঘ’টিত হতে পারে। আইনজীবী গিলস ডেভারস এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন ধ্বং’সপ্রা’প্ত ওই ভবনের মালিক আন্তর্জাতিক আদালতে যু’দ্ধা’প’রাধের মা’মলার নির্দেশ দিয়েছেন।

তিনি আ’দালতের বাইরে এসে এএফপিকে জানিয়েছেন ইস’রাইলি’রা এ হা’ম’লার কোনো সাম’রিক কারণ দেখাতে পারবে না। তিনি বলেন, ‘ধ্বং’সপ্রা’প্ত টাও’য়ারটিতে সাম’রিক গোয়েন্দা দল থাকার কথা শোনা গেলেও অ’ভিযোগপত্রে তা সম্পূর্ণ অ’স্বীকার করা হয়েছে।’

শুক্রবার অ’ভিযোগটি ই-মেইলের মাধ্যমে আ’ইসিসির দপ্তরে পাঠানোর কথা। ডেভারস আরও বলেন, ‘আন্তর্জাতিক আইন বলছে, আপনি যু’দ্ধে’র সময় কোনো বেসা’মরিক জা’নমা’লের ক্ষ’তি করতে পারবেন না, যদি সেখানে কোনো সাম’রিক সর’ঞ্জামা’দি না থাকে।’ যদিও ইস’রাই’ল বলছে হামা’সের একটি গো’য়েন্দা দল ওই ভ’বনে অ’বস্থান কর’ছিল।

জাওয়াদ মেহদি জানান, ই’সরাই’লের একজন গো’য়েন্দা কর্মকর্তা হা’ম’লার এক ঘণ্টা আগে তাকে ১৩ তলা ভব’নটিতে ক্ষে’পণা’স্ত্র ছো’ড়া হবে বলে সতর্ক ক’রেছিলেন। তারা তা বিশ্বাস করেননি। এক ঘণ্টা পরই ভবনি ধ্বং’স হ’য়েছিল। তবে আইসিসির প্রসিকিউটরের কাছে দায়েরকৃত অ’ভিযোগের বিষয়টি আমলে নেওয়া বা না নেওয়ার ব্যাপারে তিনি সম্পূর্ণ স্বাধীন।

আ’শাহত হওয়ার মতো বিষয়, আইসিসি ২০১৪ সালে ই’সরাই’ল ও ফি’নিস্তি’নের মধ্যে সং’ঘ’টিত যু’দ্ধের তদ’ন্ত শুরু করেছে গত মার্চে।ইস’রাই’ল এ সংস্থা’টির সদস্য না হলেও, ২০১৫ সাল থেকে সংস্থাটিতে সম্পৃক্ত হয়েছে। আইসিসির প্রসিকিউটর বেনসুডা বলেন, গত সপ্তাহে গা’জা ও পশ্চিম তীরে সংঘ’টিত ক্র’মবর্ধমা’ন স’হিং’স ঘট’নাগুলোর বিষয়ে সংস্থাটির কর্তাব্যক্তিরা কড়া নজর রেখে গভীর উ’দ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*