আজ আবারও ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ

২০২১ সালের ২৪ অক্টোবর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সপ্তম আসরে দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয়েছিল বিশ্ব ক্রিকেটের দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত-পাকিস্তান। এক বছরের ব্যবধানে আবারও বিশ্বকাপের মঞ্চে হতে যাচ্ছে ভারত-পাকিস্তান ক্রিকেট যুদ্ধ।

অষ্টম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ পর্বের চতুর্থ ও নিজেদের প্রথম ম্যাচে আজ মুখোমুখি হবে ভারত ও পাকিস্তান। দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী এই মহারণের উন্মাদনা আকাশ-ছোঁয়া। মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে রোববার (২৩ অক্টোবর) বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টায় শুরু হবে ভারত-পাকিস্তানের বহু কাঙ্খিত ক্রিকেট লড়াই।

গত বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও নিজেদের প্রথম ম্যাচ মুখোমুখি হয়েছিল ভারত ও পাকিস্তান। ওই ম্যাচটি পাকিস্তানের জন্য শেষ পর্যন্ত চিরস্মরণীয় হয়ে থাকে। বিশ্বকাপের মঞ্চে প্রথমবারের মতো ভারতকে হারানোর নজির গড়ে পাকিস্তান।

ভারতের বিপক্ষে ১০ উইকেটে বড় জয় পায় পাকিস্তান। পাক পেসারদের তোপে ম্যাচের শুরুতেই ব্যাকফুটে চলে যায় ভারত। পাকিস্তান পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদির তোপে ৬ রানে প্যাভিলিয়নে ফিরেছিলেন রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুল। পরবর্তীতে তৎকালীন অধিনায়ক বিরাট কোহলির লড়াকু হাফ-সেঞ্চুরিতে শুরুর ধাক্কা সামলে পুরো ২০ ওভার ব্যাট করে ৭ উইকেটে ১৫১ রান করে ভারত।

ভারতের ছুঁড়ে দেয়া এই ১৫২ রানের টার্গেট অনায়সে স্পর্শ করে ফেলেন পাকিস্তানের দুই ওপেনার মোহাম্মদ রিজওয়ান ও অধিনায়ক বাবর আজম। তাদের অনবদ্য ব্যাটিংয়ে ১৩ বল বাকী রেখে বিনা উইকেটে পাকিস্তানের জয় নিশ্চিত করেন তারা। রিজওয়ান ৭৯ ও বাবর ৬৮ রানে অপরাজিত থাকেন।

বিশ্বকাপের ওই ম্যাচের পর সর্বশেষ এশিয়া কাপে দু’বার দেখা হয় ভারত ও পাকিস্তানের। যেখানে ভারত প্রথমে পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারায়। পরের ম্যাচে একই ব্যবধানে হারায় পাকিস্তান।
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্ততি হিসেবে সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকটি ম্যাচ খেলেছে ভারত ও পাকিস্তান। এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠতে না পারা ভারত এরপর ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়া-দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দু’টি দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলেছে ভারত। তিন ম্যাচের দুই সিরিজই ২-১ ব্যবধানে জিতে টিম ইন্ডিয়া।

বিশ্বকাপের অফিসিয়াল দু’টি প্রস্তুতিমূলক ম্যাচ ছিল ভারতের। ব্রিজবেনে প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে ৬ রানে হারায় রোহিত-কোহলিরা। ব্রিজবেনেই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ও শেষ প্রস্তুতিমূলক ম্যাচটি বৃষ্টি কারণে পরিত্যক্ত হয় ভারতের।

গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালেই উঠতে পারেনি ভারত। সুপার টুয়েলভ থেকে আসর শেষ করতে হয় তাদের। ওই বিশ্বকাপের পরই বিরাট কোহলির জায়গায় ভারতীয় দলের অধিনায়কত্ব পান রোহিত শর্মা। গত বিশ্বকাপের পর ৩৫টি টি-টোয়েন্টি খেলেছে ভারত। জয় আছে ২৬টিতে। হার আছে ৮টিতে। ১টি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়।

পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচকে সামনে রেখে গত তিন দিন ধরে মেলবোর্নে ঘাম ঝরিয়েছে ভারত। নেটে বেশি সময় ব্যাট করেছেন টপ-অর্ডাররা। তাদের দেখাভালে সিরিয়াস ছিলেন প্রধান কোচ রাহুল দ্রাবিড়। বোলিংয়েও ঘাম ঝরিয়েছেন পেসার ও স্পিনাররা। দলের সেরা পেসার জসপ্রিত বুমরাহ’র না থাকার অভাব বুঝতে দিতে চায় না পেস বিভাগ।

ভারতকে হারিয়ে গত বিশ্বকাপ শুরু করা পাকিস্তান শেষ পর্যন্ত সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নেয়।
গত বিশ্বকাপের পর ২৫টি টি-টোয়েন্টি খেলেছে পাকিস্তান। জয় পেয়েছে ১৬টিতে। হারতে হয়েছে আছে নয়টিতে। একটি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়।

সম্প্রতি সংযুক্ত আরব আমিরাতের মাটিতে এশিয়া কাপের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে পরাজিত হয় পাকিস্তান। এশিয়া কাপের পর ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের কাছে সাত ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ ৪-৩ ব্যবধানে হারে তারা।

পরপর দুই সিরিজে সেরা সাফল্য না পাবার দুঃখ নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ঘোচায় পাকিস্তান। নিউজিল্যান্ড-বাংলাদেশকে নিয়ে হওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজে চ্যাম্পিয়ন হয় পাকিস্তান। বিশ্বকাপের দু’টি ওয়ার্ম-আপ ম্যাচের মধ্যে ইংল্যান্ডের কাছে ৬ উইকেটে হারে পাকিস্তান।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে অন্য ম্যাচটি বৃষ্টিতে ভেসে যায়। ওই ম্যাচে পুরো ২০ ওভার বোলিং করতে পারেন পাকিস্তানের বোলাররা। সকলের নজর ছিলো দলের সেরা পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদির দিকে।

গত জুলাইয়ে শ্রীলঙ্কার সফরে টেস্ট সিরিজে হাঁটুর ইনজুরিতে পড়ে মাঠে বাইরে ছিটকে পড়েছিলেন আফ্রিদি। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ার্ম-আপ ম্যাচ দিয়ে আবারও ২২ গজে ফিরেন তিনি। ২ ওভারে ৭ রান দিয়ে উইকেটশূন্য ছিলেন আফ্রিদি।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে অনুশীলন ম্যাচে বল হাতে পুরনো রুপে দেখা গেছে আফ্রিদিকে। ৪ ওভার বল করে ২৯ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন তিনি।

Sharing is caring!