আজম খানের শারীরিক গঠন নিয়ে যা বললেন ডু প্লেসি

আসন্ন ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে পাকিস্তান দলে ডাক পেয়েছেন দেশটির সাবেক অধিনায়ক ও উইকেটকিপার মঈন খানের ছেলে আজম খান। যদিও শারীরিক গঠন নিয়ে বেশ সমালোচিত আজম খান। তিনি বেশ স্থূলকায়। ক্রিকেটে এমন গঠন মানানসই নয় বলে অনেকেই তার সমালোচনা ও কটাক্ষ করছেন।

সমালোচনার শুরুটা হয়েছিল বছরখানেক আগে থেকেই। সে সময় পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) যখন খেলেন আজম, তখন তার ওজন ছিল ১৩০ কেজি। তুমুল সমালোচনার মধ্যে ৩০ কেজি ওজন কমিয়েছেন আজম। তবুও কটাক্ষের শিকার হচ্ছেন নিয়মিত। সমালোচনার বড় অংশ জুড়েই রয়েছে ২২ বছর বয়সী আজম খানের শারীরিক গড়ন।

এমন সব কটাক্ষের চাপে যখন বিধ্বস্ত এই তরুণ ব্যাটসম্যান, তখন তার হয়ে কথা বলেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা ক্রিকেটার ফাফ ডু প্লেসি। পিএসএলে কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সে আজম খানের সতীর্থ তিনি। সামনে থেকেই এই মঈনপুত্রের খেলা দেখেছেন। আযম খানের যোগ্যতা আর পারফরম্যান্স তার চেয়ে ভালো অনেক কম লোকই জানে। ডুপ্লেসি বলেছেন, ‘সফল ক্রিকেটার হতে সিক্স প্যাক থাকা জরুরি নয়।

ব্যাট করতে জানলে মোটা শরীরেও পারা যায়। এখানে ক্রিকেটারের যা আছে, তা নিয়েই কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। স্কিলসেটই এখানে মূল বিবেচ্য। কিংবদন্তিদের দেখুন। প্রমাণ পেয়ে যাবেন।’ আজম খানের স্থূলকায় শরীর নিয়ে এ প্রোটিয়া তারকা বলেন ’আমার অনেক আগে অনেক ক্রিকেটার ছিলেন, পরেও অনেক ক্রিকেটার আসবেন- যারা একেকজন দেখতে একেকরকম।

এই শরীর নিয়ে আজম ভালো খেলে কি না সেটাই দেখার বিষয়। সে এমন একজন খেলোয়াড়, যে উইকেটে আসবে এবং শুরু থেকেই বড় বড় শট খেলবে। তবে তাকে একটা বিষয় নিশ্চিত করতে হবে যে, উইকেটের মাঝে দৌড়ে রান নেয়ার জন্য যথেষ্ঠ ফিট কি না সে।

কীভাবে লম্বা সময় খেলতে পারে এবং ২০-৩০ করেই যেন ক্লান্ত না হয়ে পড়ে। এ বিষয়টা ভিন্ন খেলোয়াড়ের জন্য ভিন্নরকম।’ সিক্স প্যাক খেলোয়াড়ের জন্য আবশ্যক না বললেও, ডু প্লেসির সিক্স প্যাক অ্যাবস রয়েছে। শরীরে কোনো বাড়তি মেদ নেই তার। ৩৭ ছুঁইছুঁই অবস্থায়ও তাকে তরুণ বলে ভুল করবেন অনেকে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*