আইপিএলে এক চোখে তেল, অন্য চোখে বেচা হচ্ছে নুন

ডেভন কনওয়ের দুর্ভাগ্য নিয়ে টুইট করেছিলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। আইপিএল নিলামের চার দিন পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি–টোয়েন্টিতে অপরাজিত ৯৯ রানের ইনিংস খেলেন এই কিউই ব্যাটস্যম্যান। কনওয়ে ‘চার দিন দেরি করে ফেলেছেন’—টুইট করেন অশ্বিন। এ কথারই সূত্র ধরে আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজি দলগুলোর কর্তাব্যক্তিদের প্রতি ‘ইয়র্কার’ মারলেন সাইমন ডুল।

তাঁর বক্তব্য, আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো নাকি নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার খেলোয়াড়দের নিয়ে এক চোখে ‘তেল’, আরেক চোখে ‘নুন’ বেচছে! ক্রাইস্টচার্চে কাল টি–টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে দুর্ভাগ্যবশত সেঞ্চুরি পাননি কনওয়ে। কিন্তু নিউজিল্যান্ড ঠিকই ৫৩ রানের জয় তুলে নেয়।

এরপরই আগুন উসকে দেন নিউজিল্যান্ডের হয়ে ৩২ টেস্টে ৯৮ ও ৪২ ওয়ানডেতে ৩৬ উইকেট নেওয়া সাবেক এ পেসার। সম্ভাবনা নিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রাখলেও চোটের কারণে বেশিদিন খেলতে না পারায়, পরে ধারাভাষ্যকার ও বিশ্লেষক হিসেবে সুনাম কুড়ানো ডুল অশ্বিনের টুইটের পর আর চুপ করে থাকতে পারেননি।

অশ্বিনের টুইটের প্রত্যুত্তরে ৫১ বছর বয়সী ডুলের টুইট, ‘তাতে কারও কিছু যায় আসে কি না, ঠিক জানি না। দ্বিতীয় সারির অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারদের তুলনায় নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটারদের বছরের পর বছর ধরে এড়িয়ে যাওয়া হচ্ছে আইপিএলে। সম্ভবত আইপিএলের বাইরে শুধু বিগ ব্যাশ দেখেই সব বিবেচনা করা হয়।’

বিগ ব্যাশ (বিবিএল) অস্ট্রেলিয়ার টি–টোয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট। সেখানে নানা দেশের ক্রিকেটাররা খেললেও অস্ট্রেলিয়ানদের আধিক্য থাকে, আইপিএলে যেমন পান ভারতীয় ক্রিকেটাররা। ডুল বোঝাতে চেয়েছেন, খেলোয়াড় নেওয়ায় আইপিএল ম্যানেজমেন্ট বিগ ব্যাশের পারফরম্যান্স প্রাধান্য দিয়ে থাকেন।

কনওয়েও আইপিএলে নিজের নাম নিবন্ধন করেছিলেন। কিন্তু বৃহস্পতিবারের নিলামে তাঁকে কেউ কেনেনি। চার দিন পর কনওয়ের দুর্দান্ত ইনিংসের পর অশ্বিন তাই রসিকতা করে বুঝিয়েছেন, অমন ইনিংস খেলতে চার দিন দেরি করে ফেলেছেন কনওয়ে। আইপিএল নিলামের আগে খেলা উচিত ছিল!

আইপিএল নিলামে কনওয়ের ভিত্তিমূল্য ছিল ৫০ লাখ রুপি। ঘরোয়া টি–টোয়েন্টিতে টানা চার ফিফটি তুলে নিলেও ফ্র্যাঞ্চাইজি দলগুলো তাঁর প্রতি কোনো আগ্রহ দেখায়নি। নিলামের আগে তাঁর চার ইনিংস—৯৩*,৯১*,৬৯,৫০। জোহানেসবার্গে জন্মানো কনওয়ে দক্ষিণ আফ্রিকান বংশোদ্ভুত ক্রিকেটার।

নিউজিল্যান্ডের জাতীয়তা পাওয়ার পর খেলছেন দেশটির হয়ে। ডুলের টুইটে ইংল্যান্ডের সাবেক ব্যাটসম্যান কেভিন পিটারসেন তাই রসিকতা করেন, ‘ডেভন কি দক্ষিণ আফ্রিকান?’ ডুলও কম যাননি, ‘এখন আর নয়’—সঙ্গে দুটি হাসির ইমো। কিন্তু নিজের টুইটের মন্তব্যে ডুল বিষয়টি আর লঘু মেজাজের রাখেননি।

পরিসংখ্যান হাজির করে মন্তব্য করেন ডুল, ‘আইপিএল শুরুর পর ৯৪ অস্ট্রেলিয়ানের দাম ৮৮৬ কোটি (রুপি)। ৩১ নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটারের দাম ২১২ কোটি। দুই দেশেরই প্রথম শ্রেণির দল ৬টি, ঘরোয়া টি–টোয়েন্টি টুর্নামেন্টও আছে। এটা আসলে বিবিএলের সময় ও দেখার ওপর নির্ভর করে।

ডুলের টুইটেই এক পাকিস্তানির মন্তব্য, ‘তাহলে পাকিস্তানিদের কথা একবার ভাবুন। এবার আইপিএল নিলামে অস্ট্রেলিয়া থেকে রাইলি মেরেডিথ (৮ কোটি রুপি), ঝাই রিচার্ডসন (১৪ কোটি রুপি) ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলদের (১৪.২৫ কোটি রুপি) অনেক দামে কেনা হয়েছে। নিউজিল্যান্ড থেকে কাইল জেমিসনকে কেনা হয়েছে ১৫ কোটি রুপিতে।

অ্যাডাম মিলনেও খেলবেন। ট্রেন্ট বোল্ট, কেইন উইলিয়ামসন, জিমি নিশাম, মিচেল স্যান্টনাররা থাকলেও তাঁদের চুক্তির মূল্যমান অতটা চোখধাঁধানো নয়। মার্টিন গাপটিলের মতো ওপেনার তো সুযোগই পাচ্ছেন না। নিউজিল্যান্ডের থেকে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারদের আধিক্য বেশি আইপিএলে।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *